Press "Enter" to skip to content

আরো একবার পুরো বিশ্বে ভারতের নাক কাটালেন রাহুল গান্ধী! রাহুলকে মিথ্যাবাদী ঘোষণা করলো ব্রিটেনের সংস্থা।

রাহুল গান্ধী একজন ভারতীয় নেতা এবং ভারতের সংসদের একজন সাংসদ। শুধু এই নয় উনি একটা রাজনৈতিক পার্টির সভাপতি যে পার্টি দেশে সবথেকে বেশি সময় ধরে শাসন কার্য চালিয়েছে। রাহুল গান্ধীর জন্য এখন পুরো দেশের নাক কাটা যাচ্ছে। পুরো বিশ্ব রাহুল গান্ধীর জন্য ভারতের প্রতি ভুরু কুঁচকাছে। রাহুল গান্ধী দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপর রাজনৈতিক আক্রমন করতে গিয়ে সেটা এমন পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছেন যে দেশের পর্যন্ত বদনাম হচ্ছে।

রাজনীতিতে মিথ্যা বলে আক্রমন করা দেখা যায় কিন্তু অন্যের নাম নিয়ে মিথ্যা বলা খুবই লজ্জাজনক। আর সেটা যখন বিশ্বস্তরের মানুষকে আকর্ষন করে তা আরো লজ্জার। এমন কর্মকান্ড দেখে বিশ্বের মানুষজন এটাই বলবে যে ভারতের নেতারা পাক্কা মিথ্যাবাদী। এতে সরাসরি দেশের ছবি খারাপ হবে। রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রী মোদীর উপর আক্রমণ করার জন্য অক্সফোর্ড ডিকশনারির নাম নিয়ে ছিলেন। যা নিয়েই শুরু হয়েছে নতুন বিতর্ক।

রাহুল গান্ধী একটা ভুয়ো স্ক্রিন শট নিয়ে বলেন দেখুন ইংরাজিতে মোদীকে নিয়ে একটা নতুন শব্দ এসেছে। রাহুল গান্ধী একটা টুইট করে লিখেন, ইংরাজিতে মোদীকে নিয়ে একটা নতুন শব্দ এসেছে যার অর্থ মিথ্যা, অসত্য। কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে জালি বা মিথ্যাবাদী এই ধরনের দেখানোর জন্য অক্সফোর্ড ডিকশনারির নাম নিয়ে এমন টুইট করেছিলেন।

রাহুল গান্ধীর সমর্থকরা এবং কংগ্রেস পার্টির কর্মীরা সেই টুইট ব্যাপক শেয়ারও করে। কিন্তু এরপর অক্সফোর্ড এর আধিকারিকরা এটা নিয়ে পদক্ষেপ নেয়।অক্সফোর্ড টুইট করে জানায়, রাহুল গান্ধী যে টুইট করেছেন সেটা ভুয়ো। অক্সফোর্ড টুইট করে বল, তাদের ডিকশনারিতে এমন কোনো শব্দ নেই। অক্সফোর্ড এর নাম ব্যবহার করে মিথ্যা ছড়ানো হচ্ছিল তাই তারা সামনে এসে আসল সত্য তুলে ধরে।

রাহুল গান্ধী অক্সফোর্ড এর নাম নিয়ে মিথ্যা ছড়িয়েছেন যার জন্য পুরো বিশ্বে এনিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। ব্রিটেনের এক সংস্থা পুরো বিশ্বের সামনে এসে ভারতের এক নেতাকে মিথ্যাবাদী বলে গেল তথা ভুয়ো খবর ছোড়ানোর জন্য দায়ী করে গেছে। এটা দেশের জন্য খুবই লজ্জাজনক যদিও এসব নিয়ে কংগ্রেসের কোনো দুঃখপ্রকাশ করেনি।