Press "Enter" to skip to content

বিজেপি বিধায়ক শপদ নেওয়ার উপর করলেন বয়কট! কারণ হিন্দুদের গর্বিত করার মতো।

তেলেঙ্গানা বিধানসভা নির্বাচনের পর নতুন সরকারের প্রথম বিধাসভা অধিবেশনে বিজেপি বিধায়ক যা মন্তব্য করেছেন তা সকলকে চমকে দিয়েছে। বিজেপি বিধায়ক এই অধিবেশনে শপদ গ্রহন করতে অস্বীকার করেছেন তথা শপদ গ্রহণ না করার সিধান্ত নিয়েছেন। কারণ জানতে চাইলে এই বিজেপি বিধায়ক জানিয়েছেন শপদ গ্রহণের জন্য যাকে স্পিকার পদে বসানো হয়েছে উনি হিন্দু বিরোধী। শপদ গ্রহণের জন্য বসানো স্পিকার বন্দে মা তারম ও ভারত মাতা কি জয় বলতেও মানা করেন বলে দাবি করেছেন বিজেপি বিধায়ক। আসলে রাজ্যে নবনির্বাচিত চন্দ্রশেখর রাও প্রথম বিধানসভা অধিবেশন ১৭ জানুয়ারি থেকে ২০ জানুয়ারির মধ্যে হবে।

বিধানসভা কার্যকালের জন্য এই সময়ের মধ্যে নির্বাচন বিধায়কদের স্পিকারের সামনে শপদ নিতে হয়। কিন্তু বিজেপি বিধায়কের দাবি যে স্পিকারের সামনে তিনি শপদ নেবেন না কারণ স্পিকার পদে যে বসে আছেন তিনি হিন্দুদের মারার কথা বলেন। বিজেপি বিধায়ক টি রাজা সিং বলেছে উনি AIMIM এর মুমতাজ আহমেদ খানের(ইনি স্পীকার হতে চলেছেন) উপস্থতি শপদ নেবেন না।

রাজা সিং মুখ্যমন্ত্রী রাও এর কাছে আবেদন করেছেন অধ্যক্ষ পদে কে বসবে তার উপর পুনরায় যেন বিচার করা হয়। যদিও চন্দ্রশেখর রাও নিজাম ও AIMIM এর একজন বড় প্রশংসক। রাজা সিং তেলেঙ্গানায় একজন হিন্দুত্ববাদী ছবির জন্য পরিচিত। রাজা সিং বলেন উনি শপদ গ্রহণের নিয়ম এর ব্যাপারে বিশেষজ্ঞদের সাথে আলোচনা করবেন এবং পেয়ে যিনি স্পীকার নির্বাচিত হবে তার সামনে গিয়ে শপদ গ্রহণ করবেন।

রাজা সিং তেলেঙ্গানায় একজন বিজেপি নেতার থেকে বেশি হিন্দু নেতা হিসেবে পরিচিত। কারণ পুরো হায়দ্রাবাদে দুই ওয়েসী ভাইকে টক্কর দেওয়ার জন্য এই বিধায়ক যথেষ্ট। রাজা সিং পার্টির কাজ ছাড়াও হিন্দুত্ববাদী যেকোনো কাজে সক্রিয় থাকেন। হায়দ্রাবাদে দুই ভাই যখন হিন্দু বিরোধী কট্টর ভাষণ দেয় তখন একমাত্র রাজা সিং তাদের জবাব দিয়ে চুপ করিয়ে রাখেন।

Be First to Comment

Leave a Reply