Press "Enter" to skip to content

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দিলেন বড়সড়ো ইঙ্গিত, মমতার উপর হতে পারে সাংবিধানিক কার্যবাহী।

গতকাল মমতার দ্বারা করা অসাংবিধানিক কাজ নিয়ে CBI রাজ্যপালের সাথে কথা বলেছিল, আজ রাজ্যভবনে CBI এই নিয়ে রিপোর্ট জমা দেয়া। আজ সকালে ের রাজ্যপালের সাথে কথা বলেন। একই সাথে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী এক বিস্তারিত রিপোর্ট রাজনাথ সিং এর কাছে পাঠান। এখন রাজনাথ সিং এর থেকে বড় মন্তব্য সামনের চলে এসেছে যা থেকে স্পষ্ট হওয়া যাচ্ছে যে, কেন্দ্র মমতার উপর কড়া সংবিধনানিক ব্যাবস্থা নিতে চলেছে।

রাজ্যপাল উনার রিপোর্টে কি পাঠিয়েছেন তা এখনো সার্বজনীক করা হয়নি, এটা কিছু সময়ের মধ্যেই সার্বজনীক করা হবে। প্রথমত আপনাদের স্মরণ করিয়ে দি, মমতা বলেছিলেন যে তার পুলিশ আধিকারিকদের বিরক্ত করা হচ্ছে, আর একজন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তার দায়িত্ব তার পুলিশের রক্ষা করা। তবে এখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কি বলেছেন তার উপর লক্ষ করা অতিআবশ্যক।

রাজনাথ সিং বলেছেন পশ্চিমবঙ্গে পুলিশ ও CBI এর মধ্যে যা হয়েছে তা সাংবিধানিক পরিস্থিতির উৎপন্ন করেছে। আর ভারতের সংবিধান আমাদের এই অধিকার দিয়েছে যে আমরা ভারতের মধ্যে সাংবিধানিক ব্যবস্থাকে লাগু করি।

অর্থাৎ রাজনাথ সিং স্পষ্ট করেন যে আমাদের কাছে বেশি অধিকার রয়েছে যার প্রয়োগ আমরা করতে পারি। আইন শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য কেন্দ্র তার অধিকারের পূর্ন ব্যাবহার করতে পারে, এর স্পষ্ট ইঙ্গিত দেন রাজনাথ সিং।

কাল CBI এর আধিকারিকদের উপর অত্যাচার করে, আটক করে সরাসরি সংবিধানের উপর আক্রমন করে দিয়েছে মমতা ব্যানার্জীর প্রশাসন। CBI একটা সাংবিধানিক সংস্থা যাকে এইভাবে আটকানোর নিয়ম থাকে না। এরপর কেন্দ্র একটা বড় কার্যবাহী করবে এটা কেন্দ্র ভালোভাবেই বুঝে গিয়েছে। তাই মমতা নিজেকে পীড়িতা দেখাতে ধর্নায় বসে গেছে বলে অনেকে দাবি করেছে। এমনিতেই অনেকে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি উঠিয়েছেন, এরমধ্যে রাজ্যপালও রিপোর্ট পাঠিয়ে দিয়েছে, নির্বাচন কমিশনের কাছেও দেশের বড় বড় মন্ত্রীরা এসে মমতার উপর অভিযোগ করেছে। তাই একটা বড় কিছু ঘটার আশঙ্কাকে অবহেলা করা যাচ্ছে না।

9 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.