Press "Enter" to skip to content

হিন্দুমন্দিরের ব্যাপারে নাক গোলানো বন্ধ হওয়া উচিত, হিন্দুদের টার্গেট করা বন্ধ হোক : রজনীকান্ত

কেরালার সরকার সবরিমালা ইয়াপ্পা মন্দিরে সঙ্গস্কৃতি ভেঙে ফেলার জন্য যেভাবে লাগাতার প্রয়াস করছে, তা দেখে অনেক নিশ্চুপ থাকা ব্যাক্তিরাও মুখ খুলতে শুরু করেছেন। আসলে ভারতে এমন কিছু মন্দির রয়েছে যেখানে পুরুষদের প্রবেশ নিষিদ্ধ একইভাবে এমনকিছু মন্দির রয়েছে যেখানে মহিলাদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। আসলে এখানে কোনো নারীবিদ্বেষ বা পুরুষবিদ্বেষ বলে ব্যাপার নেই। পুরোটাই পুরানো বিধি ও সঙ্গস্কৃতি মেনে করা হয়। কিন্ত এখন কেরালার বামপন্থী সরকার হিন্দুদের মন্দিরের নিয়ম ভেঙে মুসলিম ও খ্রিষ্টান মহিলাদের প্রবেশ করানোর জন্য উঠে পড়ে লেগেছে।

কারণ কোনো মহিলা কোনোভাবেই মন্দিরের নিয়ম অমান্য করবে না , তাই অন্য সম্প্রদায়ের মহিলা প্রবেশ করিয়ে সঙ্গস্কৃতিতে আঘাত হানার ভরপুর চেষ্টা চলছে। সুপ্রিম কোর্টে এই বলে পিটিশন দায়ের হয়েছিল যে মন্দিরে সমস্থ বয়সের মহিলাদের প্রবেশের অধিকার দেওয়া হোক। সুপ্রিম কোর্ট সমস্থ মন্দিরের নিয়ম ভেঙে রায় দেয় কিন্তু তারপরেও কোনো মহিলা মন্দিরে প্রবেশ করেনি। সাবরিমালা মন্দিরে যার প্রবেশের চেষ্টা করছে তারা বেশিরভাগই খ্রিষ্টান মহিলা, সামান্য কিছু মুসলিম মহিলা ও বামপন্থী মহিলারা রয়েছে।

এরা মন্দিরে প্রবেশ করে নিজেদের শক্তি প্রদর্শন করতে চাইছে। এদেরকে মন্দিরে ঢোকানোর জন্য কেরালার সরকার মন্দিরের ভক্তদের উপর অত্যাচার শুরু করেছে। কেরালার প্রতিবেশী রাজ্য তামিলনাড়ুতে রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু করা সুপারস্টার রজনীকান্ত এই ব্যাপারে নিজের নিশ্চুপতা ভেঙেছেন এবং হিন্দুদের সমর্থনে দাঁড়িয়েছেন। রজনীকান্ত বলেছেন, “হিন্দুমন্দিরের ব্যাপারে সকলের দখলদারি করা উচিত নয়। মন্দিরের নিয়ম নিজস্ব এবং এই বিধি নিয়ম অনেক ভেবেচিন্তে তৈরি করেছে সমাজ।”

রজনীকান্ত আরো বলেন, সুপিম কোর্ট যে রায় দিয়েছে তার বিরোধিতা পুরুষের থেকে বেশি মহিলারাই করছেন কারণ এটা মন্দিরের প্রাচীন বিধি যা কোর্ট ভেঙে দিয়েছে। কোনো ইয়াপ্পাভক্ত মন্দিরের নিয়ম ভাঙবে না। সুপারস্টার রজনী বলেন, মন্দির ও হিন্দু সমাজের উপর যে লাগাতার টার্গেট করা হচ্ছে সেটা বন্ধ হওয়া উচিত, হিন্দুদের ব্যাপারে সকলের নাক গোলানো উচিত নয়।