Press "Enter" to skip to content

আদিবাসী নাবালিকাকে ধর্ষণ করে দুবার গর্ভবতী করার পর, নগ্ন ভিডিও বানিয়ে গ্রেফতার এরাজ্যের পাদরি!

এক আদিবাসী যুবতীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে গ্রেফতার হল এরাজ্যের এক পাদরি। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর বঙ্গের ফালাকাটায়। অভিযুক্ত পাদরির নাম কাই লাম (৪১)। স্থানীয় একটি চার্চের পাদরি কাই লামকে শনিবার সকালে গ্রেফতার করা হয়।

ওই যুবতী অভিযোগ করে জানায়, তানা তিন বছর ভয় দেখিয়ে ওই পাদরি তাঁকে ধর্ষণ করে। তাঁর জেরে দুবার গর্ভবতীও হয়েছে ওই আদিবাসী যুবতী। যুবতীর নগ্ন ছবি তাঁর মোবাইলে রেকর্ড করে রেখে দিনের পর দিন ব্ল্যাকমেল করে তাঁকে ধর্ষণ করা হত বলে জানিয়েছে নির্যাতিতা। এমনকি ওই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে তাঁকে বদনাম করারও হুমকি দিত ওই পাদরি।

এতদিন মুখ বুঝে থেকে বদনামের ভয় সব সহ্য করেছিল ওই যুবতী। কিন্তু বৃহস্পতিবার ধৈজ্যের বাঁধ ভেঙে চার্চে সবার সামনে দুশ্চরিত্র পাদরির মুখোশ খুলে দেয় ওই যুবতী। এই ঘটনা সবার সামনে আসার পর সালিশি সভার মাধ্যমে ঘটনাকে ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করে চার্চ কর্তৃপক্ষ। মোটা টাকার প্রলোভনও দেওয়া হয় যুবতীর পরিবারকে। অবশেষে যুবতী এবং যুবতীর পরিবার ফালাকাটা থানায় গিয়ে অভিযুক্ত পাদরির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে।

যুবতীর অভিযোগ অনুযায়ী, নির্যাতিতা নাবিলিকা থাকাকালীন অবস্থা থেকেই তাঁর ওপর মানসিক এবং পাশবিক অতাচার চালায় অভিযুক্ত পাদরি। ফালাকাটা থানার পুলিশ অভিযুক্ত পাদরি কাই লাম এর বিরুদ্ধে পসকো আইনে মামলা দায়ের করে শনিবার সকালে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে।

এই ঘটনা সর্বসমক্ষে আসার পর উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়। গ্রামবাসীরা অভিযুক্ত পাদরির বাড়িতে পাথর দিয়ে হামলা চালিয়েছে। অবশেষে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.