Press "Enter" to skip to content

“পাকিস্থানের উপর ভারত সরকার যা করেছে সঠিক করেছে, আতঙ্কবাদ সমাপ্ত হওয়া প্রয়োজন”:রতন টাটা।

পুলবামায় ৪৪ জন বলিদানি জওয়ানদের বদলা নেবার জন্য ২৬ শে ফেব্রুয়ারি ভারতীয় সেনা বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইক করেছিল। যার দরুন পাকিস্থানের বহু আতঙ্কবাদী শেষ হয়ে গেছে। যারপর থেকে ভারত ও পাকিস্থানের মধ্যে স্থিতি উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে। ভারতের বায়ুসেনা পাকিস্থানের আতঙ্কবাদী ক্যাম্পের উপর স্ট্রাইক চালিয়েছিল এবং পাকিস্থানের জনগনের যাতে কোনো ক্ষতি না হয় সেই দিকে নজর রেখেছিল। কিন্তু পাকিস্থান উল্টে ভারতের উপর আক্রমনের জন্য লাগাতার চেষ্টা চালাচ্ছে। গতকাল থেকে পাকিস্থানের সেনা, ভারতের সীমান্তের গ্রামগুলির উপর আক্রমণ চালাচ্ছে। শুধু এই নয়, পাকিস্থানের তিনটে  F-16 ভারতের সীমায় ঢুকে বোমাবাজি করার চেষ্টাও করেছিল। যারপর আবার  একশন মুডে চলে এসেছে ভারতীয় সেনা ও সরকার। এখন আরো একটা বড় স্ট্রাইকের জন্য পস্তুতি নিচ্ছে ভারতের তিন সেনা।

তবে পাকিস্থানের উপর যাতে আর স্ট্রাইক না হয় তার জন্য দেশের ভেতরে ঢুকে থাকা সেকুলারবাদী, শান্তিবাদী গ্যাং সক্রিয় হয়ে উঠেছে। পাকিস্থানকে বাঁচানোর জন্য কিছু মিডিয়া এবং বামপন্থী ঘেঁষা গ্যাং শান্তিবাদী নীতির প্রচার শুরু করেছে। যাতে পাকিস্থানের উপর আর স্ট্রাইক না করা হয় তথা পাকিস্থানকে বাঁচানোর জন্য এই তথাকথিত শান্তিবাদীরা দেশের জনগণের ব্রেনওয়াস করার কাজও শুরু করেছে।

তবে দেশের অধিকাংশ মানুষ দেশের সেনা, সরকারের সাথে রয়েছ এবং এক সুরে বদলার আওয়াজ তুলেছে। এই সমস্তকিছুর মধ্যে ভারতের অন্যতম বড় ব্যবসায়ী বড় মন্তব্য করেছেন। বলেছেন আমি প্রধানমন্ত্রী মোদী ও ভারতীয় সেনাকে অভিনন্দন জানাই। স্ট্রাইক একদম সঠিক হয়েছে এবং পাকিস্থানের উপর বদলা নেওয়া অবশ্যই উচিত।

জানিয়ে দি, রতন টাটা আতঙ্কবাদ দ্বারা পীড়িত একজন ব্যক্তি। তাজ হোটেল ইনার যেখানে ২৬/১১ তে আতঙ্কবাদী হামলা হয়েছিল। সেই সময় কংগ্রেস সরকার পাকিস্থানের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। শুধুমাত্র প্রমান পত্র চাওয়া পাওয়ার খেলা খেলছিল। তবে আজ দেশে মোদী সরকার রয়েছে এবং পুলবামা হামলার আধা বদলা নেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। আরো একশন কিছুদিনের মধ্যেই দেখা যাবে।

8 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.