Press "Enter" to skip to content

‘গান্ধী টাইটেল ছাড়া আপনারা কাছে কি আছে?’ – সাংবাদিকের প্রশ্নে চমকে উঠে এটাই করলেন রাহুল গান্ধী।

সভাপতি চার দিবশীয় যাত্রায় ে ছিলেন। সেখানে এক প্রেস কনফারেন্সকে সম্ব্ধিত করেন রাহুল গান্ধী। সেই প্রাক্কলেও এক সাংবাদিক রাহুল গান্ধীকে প্রশ্ন করেন , ‘গান্ধী টাইটেল ছাড়া আপনার কাছে আর কি আছে?।’এই প্রশ্ন করায় রাহুল গান্ধী এমন কিছু করেন যা অবাক করার মতো। বিদেশের মাটিতে এইরকম প্রশ্ন যে রাহুল গান্ধীকে করা যেতে পারে এটা কখনো চিন্তায় করেননি রাহুল গান্ধী। রাহুল গান্ধীকে এই প্রশ্ন হলে উনি স্তম্ভিত হয়ে পড়েন। এরপর রাহুল গান্ধীকে প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য বলা হলে উনি প্রথমত বিষয়টিকে ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু শেষমেষ দর্শকদের কাছ থেকে এড়িয়ে না যেতে পারে রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে মন্তব্য করতে শুরু করেন। উল্লেখ্য, ভারতেও এমন কথা উঠে যে রাহুল গান্ধীর মধ্যে তেমন কোনো বিশেষ কোনো গুন নেই যে রাহুল গান্ধী কোনো কোনো রাজনীতি পার্টির নেতা না সভাপতি করা যেতে পারে।

ভারতের অনেকেই দাবি করে থাকেন যে গান্ধী টাইটেল থাকার জন্য রাহুলকে কংগ্রেস পার্টির মুখ করে রেখেছে। আসলে একটু ভেবে দেখলে এটা সত্যই যে রাহুল গান্ধী নাম থেকে গান্ধী সারনেম সরিয়ে নিলে রাহুলের ওজন বলে কিছুই থাকে না। কারণ রাজনৈতিক জগতে রাহুল হারের দিক থেকে ওয়ার্ল্ড রেকর্ড তৈরি করে ফেলেছেন। তাছাড়া রাহুল গান্ধী যেভাবে বিদেশে গিয়ে ভারতের ছবি খারাপ করেন তা কোনো রাজনেতাকে শোভা পায় না। বিরোধী দলের নেতারা শাসক দলের নেতাদের সমালোচনা অবশ্যই করতে পারে।

কিন্তু বিদেশে গিয়ে দেশের ছবি খারাপ করার অধিকার কারোর নেই যেটা রাহুল গান্ধী করেন। এটাও ঠিক যে কংগ্রেস পার্টির নেতারা রাহুল গান্ধীকে নেতা মনে করেন কারণ তিনি গান্ধী পরিবারের সাথে জুড়ে রয়েছেন। এটা ছাড়া রাহুল গান্ধীর কাছে নিজের কিচ্ছু উপলদ্ধি নেই।আপনাদের জানিয়ে দি, যখন রাহুল গান্ধী কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে শপদ নিয়েছিলেন তখন কংগ্রেসের মধ্যেই প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল কিন্তু সোনিয়া গান্ধীর কুটনৈতিকতার জন্য রাহুলকেই সভাপতি করা হয়েছিল।

জানলে অবাক হবেন ১ বছর আগে মোহনদাস করম চাঁদ গান্ধীর এক নাতি সোনিয়া ও রাহুলকে লিখিতভাবে নির্দেশ দিয়েছিলেন গান্ধী টাইটেল তাদের নাম থেকে সরিয়ে নিতে। কারণ তারা এটার দুর্ব্যবহার করছেন যার প্রভাব দেশের মধ্যে পড়ছে। প্রসঙ্গত, রাহুল গান্ধী ও সোনিয় গান্ধী ভারতে এই নামে পরিচিত হলেও ইতালিতে এনারা রল ভিঞ্চি ও আন্তোনিয়া মিয়ানো নামে পরিচিত। বিদেশে যতগুলি ব্যাঙ্কের খাতা বা ভারতের পাসপোর্টে পর্যন্ত এনাদের এই নাম রয়েছে।