Press "Enter" to skip to content

ব্রেকিং খবর: মোদী সরকারের বড় জয়, লোকসভায় পাশ হলো জেনারেল বর্গকে সংরক্ষণ দেওয়ার বিল।

মঙ্গলবার বার দিন বেশ ঐতিহাসিক দিন হিসেবে কাটলো মোদী সরকারের জন্য। লোকসভায় একইসাথে দুই প্রধান ইস্যুর উপর বিল পাশ করিয়ে নিলো মোদী সরকার। প্রথমে নাগরিকত্ব বিল এবং তারপর জেনারেলদের জন্য ১০% সংরক্ষণ বিল পাশ করিয়ে নিল সরকার। নাগরিকত্ব বিলের ক্ষেত্রে বিরোধের মুখোমুখি হতে হলেও সংরক্ষণ দেওয়া দিকে কোনো বিরোধের সম্মুখীন হতে হয়নি মোদী সরকারকে। নাগরিকত্ব বিলের উপর কংগ্রেস ও তৃণমূল কংগ্রেস তীব্র বিরোধিতা করে। তৃণমূল কংগ্রেস নাগরিকত্ব বিলে মুসলিম সম্প্রদায়ের পক্ষ নিয়ে কথা বলে। TMC নাগরিকত্ব সংশোধন বিলে অন্যান ধর্মের সাথে ইসলাম ধর্মকেও আনার কথা তোলে। যদিও বিরোধিতার পরেও লোকসভায় বিল পাশ হইয়ে যায়। অন্যদিকে সংরক্ষণ বিল নিয়ে তেমন কোনো বিরোধের সম্মুখীন হতে হয়নি বিজেপিকে।

বিজেপির তরফ থেকে থাওহার চন্দ গেহলট এই বিল লোকসভায় পেশ করেন এবং
সর্বভারতীয় আন্না দ্রাবিড় মুনেত্র কড়গম পার্টি এই বিলের বিরোধিতা করে যারপর তাদের সাংসদরা ভোটিং শুরু হওয়ার আগে বেরিয়ে যান। বিজেপি আগেই তার সাংসদদের লোকসভায় উপস্থিত থাকার জন্য জানিয়েছিল। শীতকালীন অধিবেশনে এই বিল পাশ করানোর উপর একটা টার্গেট নিয়েছিল মোদী সরকার।

জানিয়ে দি, সংরক্ষণ বিল পাশ হওয়ার পর এবার শিক্ষা ক্ষেত্রে, চাকরি ক্ষেত্রে জেনারেল ক্যাটাগরির ব্যক্তিরা ১০% সংরক্ষণ পাবেন। এই বিল পাশ করানোর জন্য সরকারকে বিশেষ কোনো জোর দিতে হয়নি কারন বিজেপির সবথেকে বড় বিরোধী পার্টি কংগ্রেসও এই বিলের সমর্থনে তাদের সাংসদের সোমবার দিন ও মঙ্গলবার দিন উপস্থিত থাকার কথা বলা হয়েছিল।

জেনারেল ক্যাটাগরিকে সংরক্ষণ দিয়ে মোদী সরকার দুই সাফল্য লাভ করেছে। প্রথমত দেশের সাধারণ বর্গের মানুষের বহুদিনের দাবিকে মান্যতা দিয়েছে, দ্বিতীয়ত, সংরক্ষণ পাওয়া নিয়ে সমাজে যে বৈষম্য দেখা দিত তা শেষ করার পক্ষে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। দেশের বহু প্রান্তে অনেক সময় সংরক্ষণ নিয়ে হিন্দু হিন্দুতে বৈষম্য সৃষ্টি হতো এখন থেকে সেই বৈষম্য দেখা যাবে না বলেই মনে করা হচ্ছে।

Be First to Comment

Leave a Reply