RSS কিভাবে ১৯৬২ এর ভারত-চীন যুদ্ধে ভারতীয় সেনাকে সাহায্য করেছিল জানলে আপনিও সঙ্ঘের উপর গর্ব করবেন।

কংগ্রেস ও বামফ্রন্ট সহ কিছু হিন্দুসংগঠনবিরোধী দলের সদস্যরা কোনো দিন আরএসএস এর শাখা গুলি তে পা রাখেননি এমনকি তাদের কাছে আর এস এস সম্পর্কে সঠিক কোনো ধারনা নেই। কিন্তু তারা সুযোগ পেলেই আর এস এস এর নামে কটুক্তি করতে ছাড়েন না। তারা সব সময় আর এস এস কে গেরুয়া সন্ত্রাস বলে দাবি করেন। তাদের মতে আরএসএস দাঙ্গা সমর্থন করে এবং দেশের মানুষের মধ্যে বিভেদ সৃস্টি করে।বামপন্থী ও কংগ্রেসিরা কোনো দিন আরএসএস এর সমাজসেবামূলক কাজ ও দেশের হিতের কাজ গুলি সমর্থন করেনি। আরএসএস এর স্বেচ্ছাসেবকরা বার বার প্রাকৃতিক নানা কারনে বিপদজনক পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশের সাধারন মানুষের পাশে গিয়ে দাড়িয়েছে। দেশের গরিব শিশু দের শিক্ষাদান করেছেন এই সব কথা কোনো দিন কংগ্রেস শিকার করবে না।

আজ আমরা আপনাদের এমন কিছু তথ্য দেব যেটা জানার পর আপনারাও RSS এর উপর গর্ব বোধ করবেন।আর এস এস অন্যসব দেশপ্রেমিকদের মতন নিজের মা এর মত দেশ কে ভালোবেসে চলেছে। দেশের খারাপ সময়ে সব সময় সবার আগে আরএসএস আগে এসে দাঁড়িয়েছে। এমন কি ১৯৬২ সালে যখন ইন্দো-চায়না যুদ্ধ হয় সেই সময় আর এস এস ভারতীয় সেনা জাওয়ান দের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে যুদ্ধ করেছেন। তারাও দেশের হয়ে নিজের রক্ত ঝড়িয়েছি। আপনারা জানলে অবাক হবেন, যে ইন্দো-চায়না যুদ্ধের সময় বামপন্থিরা চীনের দালালী করার জন্য ভারতীয় সেনার পাশে দাঁড়ানো তো দূর ব্লাড ব্যাঙ্কে রক্ত দান করতেও অস্বীকার করেছিল বহু বামপন্থী।
আসলে তারা সেই সময় শুধু নিজের গদি দেখেছে।

এমন কি ইন্দো-চায়না যুদ্ধ যেখানে হয়েছিল সেখানে প্রচণ্ড ঠান্ডা ছিল কিন্তু সেই সময় নেহেরু সরকার ঠান্ডার হাত থেকে বাঁচার জন্য সেনা জাওয়ান দের কোনো রকম গরম প্রসাক দিয়ে সাহায্য করেন নি। যুদ্ধের প্রয়োজনীয় অস্ত্র এর প্রয়োজন পর্যন্ত মেটাতে পারেনি কংগ্রেস। ফলে প্রান গিয়েছিল বহু সেনা জাওয়ানের। এই রকম পরিস্থিতিতে যখন সেনাদের সাহায্য করার জন্য কেউ এগিয়ে আসেন নি তখন আরএসএস তাদের সমস্ত শক্তি দিয়ে সেনা জাওয়ান দের সাহায্য করতে এগিয়ে গিয়েছিল।

এর জন্য পরে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আর এস এস প্রশংসাপ্রাপ্ত হয় এবং RSS কে জওহরলাল নেহেরু প্যারেড এর জন্য আমন্ত্রিত করেন ১৯৬২ এর প্রজাতন্ত্র দিবসে। যে কংগ্রেস একদিন RSS এর উপর প্রতিবন্ধক এনেছিল তারাই সংঘের দেশপ্রেমের কাছে মাথানত করে প্রজাতন্ত্র দিবসে সয়ংসেবকদের আমন্ত্রণ করতে বাধ্য হয় । প্রসঙ্গত আপনাদের জানিয়ে রাখি কংগ্রেসের ভুল নীতি ও চীনের সাথে বেশি সুসম্পর্ক দেখাতে গিয়ে হারতে হয়েছিল ভারতকে।

#অগ্নিপুত্র

you're currently offline

Open

Close