Press "Enter" to skip to content

ঝড়ের গতিতে পশ্চিমবঙ্গে শক্তি বৃদ্ধি করছে RSS(আর এস এস)।

পশ্চিমবঙ্গে বিরোধী তৃণমূলের শাসন চললেও রাজ্যে লাগাতার বেড়ে চলেছে সঙ্ঘের শক্তি। পুরো দেশে যে হারে নিজের শক্তি বৃদ্ধি করছে তার থেকে রাজ্যে অনেক বেশি গতি নিয়ে শক্তি বৃদ্ধি করেই চলেছে। ২০১৩ সালে থাকা সঙ্ঘের মতো সংখ্যা ছিল ৭৫০ টি যা বর্তমানে বেড়ে ১২৭৯ সংখ্যা পার করেছে। সঙ্ঘ সূত্রে খবর পুরো দেশে ৪০ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেখানে দেশের এই রাজ্যে সংগঠন বৃদ্ধির হার ৪৭ শতাংশ। আর এস এস পশ্চিমবঙ্গের যুবকদের থেকে বেশ ভালো রকম সাড়া পাচ্ছে বলে জানা গেছে। দক্ষিণবঙ্গের আর এস এস সম্পাদক যিশু বসু জানিয়েছেন বাংলাদেশের সন্ত্রাসীদের আখড়ায় পরিণত হয়েছে এই বাংলা।

এখন যুবকদের আর এস এস এ যোগ দান দেশকে মৌলবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করার শক্তি দেবে বলেই মনে করছেন তিনি। আর এস এস এর মুখ্যপত্র বিপল্ল রায় বলেন রাজ্যে ৬২১ টি সেবা কেন্দ্র রয়েছে যার মধ্যে বেশি সংখ্যাই রয়েছে দক্ষিণ বঙ্গে। দক্ষিণ বঙ্গের প্রায় ৬৬ টি ব্লকে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের মতো সেবা কাজের সাথে যুক্ত রয়েছে আর এস এস এর সদস্যরা।

আর এস এস(RSS) এর শক্তি বৃদ্ধি ভিডিও দেখুন-

রাজ্যের বহু সংখ্যায় আর এস এস এর স্কুলও রয়েছে যেখানে দেশভক্তি ও রাষ্ট্রপ্রেমের মতো ধারণা সম্পর্কে আরো গভীরভাবে প্রবেশ করিয়ে দেওয়া হয়। যদিও মমতার সরকার এই স্কুলগুলির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে। কারণ তৃণমূলের কাছে এটা স্পষ্ট যে যুবকদের মধ্যে রাষ্ট্রচেতনা তৈরি হলে রাজ্যে বিজেপি সরকার আসা কেউ আটকাতে পারবে না। রাজ্যের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ আর এস এস এর স্কুলের পক্ষ নিয়েই দাঁড়িয়েছিলেন এবং আর এস এস ভাবধারায় চলা স্কুলে দেশপ্রেমিক তৈরি হয় বলে জানিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, জানিয়ে দি আর এস এস কোনো ছোট সংঘটন নয়, আর এস এস বর্তমানে দেশের সবথেকে বড় সংগঠন। আর এস এস ও শ্যামাপ্রাসাদ মুখার্জী না থাকলে না পশ্চিমবঙ্গ, কাশ্মীর ও পাঞ্জাব এই তিনটি পাকিস্থানের অন্তর্গত হত।