Press "Enter" to skip to content

ক্ষমতায় এলে RSS ব্যান করে দেওয়া হবে ঘোষণা করল কংগ্রেস ! RSS সমৰ্থনকারীদের অধিকার কেড়ে নেওয়া হবে।

গণতন্ত্রের অর্থ এই যে- যদি কেউ আপনার মতের বিরোধী হয় তাকেও বলার অধিকার দেওয়া। গণতন্ত্র সকলকে তাদের মতামত প্রকাশ করার অধিকার দেয়। কিন্তু দেশের গণতন্তের উপর কতটা ভরসা করে সেটা দেশে এমার্জেন্সি লাগিয়ে বহু আগেই প্রমান করে দিয়েছিল। এবার লিখিত ঘোষণা করে দিয়েছে যে যদি তারা ক্ষমতায় আসে তাহলে কে ব্যান করে দেওয়া হবে। এর সমস্থ শাখাকে ব্যান করার সাথে সাথে যারা সরকারি কর্মী হয়ে এর শাখায় যাবে তাদের চাকরি কেড়ে নেওয়া হবে। যদি কোনো কর্মী এর সমর্থক হয় বা এর আসে পাশেও যায় তাহলে তাকে চাকরি থেকে বের করে দেওয়া হবে। যদি কোনো কলেজের প্রফেসর কে সমর্থন করে তাহলে তাকে বরখাস্ত করা হবে। কোনো ডক্টর, অধ্যাপক অথবা কোন সরকারি ইঞ্জিনিয়ার এর অনুষ্ঠানে গেলে তার চাকরি বাতিল করা হবে। এমনকি কোনো সরকারি ভবনে কে কার্যক্রম করতে দেওয়া হবে না।

মধ্যেপ্রদেশে কংগ্রেসের ঘোষণাপত্রে এমনটাই বলা হয়েছে। ক্ষমতায় এলে RSS কে নিষিদ্ধ করার সাথে সাথে কোনো ব্যক্তি RSS এর সাথে যুক্ত হলে তার উপর কার্যবাহী করা হবে বলেও ঘোষণা করা হয়েছে। এটা স্পষ্ট যে এবার কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে তাদের বিরোধ করা সবথেকে বড়ো সংগঠন RSS কে ব্যান করে দেওয়া হবে। কংগ্রেস তাদের বিরুদ্ধে ওঠা আওয়াজকে চিরতরে বন্ধ করে দেওয়ার এই ঘোষণা করেছে।

স্মরণ করিয়ে দি, এটা সেই কংগ্রেস যারা কিছু ইসলামিক আতঙ্কবাদ সংগঠনের উপর ব্যান না লাগানোর দাবি তুলেছিল। কংগ্রেস পার্টি ভারত বিরোধী অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের উপর ব্যান লাগানোর ঘোষণা না করলেও ক্ষমতায় এলে ‘বন্দেমাতারম’ বলা সংগঠনের উপর ব্যান লাগিয়ে দেওয়ার সিধান্ত নিয়ে ফেলেছে। জানিয়ে দি অনেকে কংগ্রেসের এই সিধান্তকে মুসলিম তোষণকারী সিধান্ত বলেও দাবি করেছে।

 

শনিবার দিন কংগ্রেস মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের হেড কোয়ার্টাররে এই ‘বচন পত্র’ জারি করেছে। এই ঘোষণা পত্র সমানে আসার পর বিজেপি সমর্থকরা কংগ্রেসের উপর লাগাতার আক্রমণ করতে শুরু করে দিয়েছে। অনেকে রাহুল গান্ধীকে ও তার পার্টিকে মুসলিম ও মুসলিম পার্টি বলে অভিহিত করতে শুরু করেছে। রাজনিশ আগরওয়াল রাহুল গান্ধীর উপর আক্রমণ করে বলেছেন রাহুল গান্ধী যেখানেই থাকেন সেখানেই দেশ বিরোধী কাজ দেখা যায়।