এবার অভিষেক এর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে চলেছে আরএসএস, চরম চাপে তৃণমূলের যুবরাজ

তৃণমূলের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসের খুনের ৩৬ ঘন্টা পরেও থমথমে নদীয়ার হাঁসখালি। আজ সোমবার নিহত তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে বিধায়কের পরিবারের সাথে দেখা করতে জান তৃণমূলের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। নিহত বিধায়কের পরিবারের সাথে আধ ঘন্টা সময় ও কাটান তিনি। সেইসময় তিনি বিধায়ক খুনের দায় আরএসএস এর ঘাড়ে চালানোর চেষ্টা করেন।

TMC MLA Satyajit Biswas

আরেকদিকে শনিবার রাতে দুষ্কৃতীদের হাতে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি খাওয়ার পর নদীয়া তৃণমূল জেলা সভাপতি গৌরীশঙ্কর দত্ত গোটা ঘটনা বিজেপির ঘাড়ে চাপিয়ে দেন। তিনি গোটা ঘটনায় মুকুল রায়কে কাঠগড়ায় তোলেন। আরেকদিকে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টপাধ্যায় ও দলের অন্তদ্বন্দ্ব ঢাকতে দোষ বিজেপির ঘাড়ে তুলে দেয়।

সোমবার হাঁসখালিতে গিয়ে বিধায়ক খুনে আরএসএস কে জড়িত করার চেষ্টা করেন তৃণমূলের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘ রাজ্যে হিংসা আমদানি করতে আরএসএস এই কাজ করেছে ” এমনকি খুনের মূল অভিযুক্ত অভিজিৎ পুন্ডারি কে আরএসএস ক্যাডার বলে চিহ্নিত করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর এরকম অহেতুক অভিযোগের পর সরব হয় আরএসএস। দক্ষিণ বঙ্গ আরএসএস এর এক স্বয়ংসেবক বলেন, ‘ দাড়িভিট কাণ্ডের পরেও শিক্ষা নেয়নি গোটা তৃণমূল দল। সেখানেও আরএসএস এর উপর সম্পূর্ণ দোষ চাপিয়ে দিয়েছিল তাঁরা। কিন্তু কোন প্রমাণ আর যুক্তি দিতে পারেই সেই অভিযোগের বিরুদ্ধে। এমনকি তদন্ত ও সঠিক ভাবে করতে দেয়নি তাঁরা। এবার ও নিজেদের ব্যার্থতা ঢাকতে আবার আরএসএস এর কাঁধে দোষ চাপাচ্ছে।”

দাড়িভিট কাণ্ডে আরএসএস এর ঘাড়ে দোষ চাপিয়েছিলেন শাসক দলের মহাসচিব পার্থ চট্টপাধ্যায়। এই কারণে সেবার পার্থ চট্টপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠায় আরএসএস। এবারও সেই একই কাজ করতে চলেছে আরএসএস। আরএসএস এর তরফ থেকে জানান হয়েছে যে, এই মিথ্যা অভিযোগ করার জন্য তৃণমূলের যুব দলের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে আইনি নোটিশ পাঠাবে তাঁরা।

Leave a Reply

you're currently offline

Open

Close