Press "Enter" to skip to content

নরেন্দ্র মোদীর কূটনীতিতে চমকিত আমেরিকা,চীন সহ পুরো বিশ্ব! সর্বশক্তিমান হওয়ার দিকে পা বাড়ালো ভারত

দেশে বহু বছর কংগ্রেস শাসন থাকার পর ২০১৪ তে নরেন্দ্র মোদীর সরকারের হাতে দেশের শাসন ক্ষমতা এসেছে। ক্ষমতায় আসার পর থেকে সরকার দেশের জনগণের সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য একের পর এক বড়ো পদক্ষেপ নিয়ে বিরোধীদের মুখে ঝামা ঘষে দিয়েছে। জানিয়ে দি কিছুদিন আগেই সরকার সীমান্তে জঙ্গি ও অনুপ্রবেশ আটকানোর জন্য অদৃশ্য বেষ্টনী লাগানোর কাজ শুরু করেছে। আপাতত ভারত পাকিস্থান বর্ডারে ৫ কিমি এলাকা জুড়ে এই অদৃশ বেষ্টনী লাগানো হয়েছে যা অতিক্রম করে ভারতে প্রবেশ করা প্রায় অসাধ্য ব্যাপার। কংগ্রেস আমলে ভারতের জনগণের সুরক্ষা তো দূর বরং দলে দলে রোহিঙ্গা ও অবৈধ বাংলাদেশি মুসলিমদের দেশে ঢুকিয়েছে যার জন্য প্রতি বছর দেশে একটা না একটা বড়ো আতঙ্কবাদী হামলা হতো। কিন্তু এই ৪ বছর শাসনকালে দেশের জনগণের সুরক্ষা এমনভাবে নিশ্চিত করেছে যে দেশে একটাও জঙ্গি হামলা ঘটেনি।

তবে তখন ভারতের সুরক্ষা সম্পর্কিত আরো একটা বড়ো খবর সামনে আসছে। ভারত এবার এমন পদক্ষেপ নিয়েছে যার জন্য পাকিস্থানের বায়ু সেনা তো দূর, চীনের বায়ু সেনাও ভারতের উপর হামলা করার ব্যাপারে ভাববে না। ভারতকে চীনি বায়ুসেনা থেকে চিরদিনের জন্য সুরক্ষিত করার যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়ে ফেলেছে মোদী সরকার। এবার যতদিন পর্যন্ত চীনের কাছে নতুন কোনো বড়ো আবিষ্কার সামনে আসছে ততদিন চীনের বায়ু সেনা থেকে কোনো বিপদ নেই ভারতের। কারণ বিশ্বের সবথেকে আধুনিক এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম ভারত পেতে চলেছে।

ের মধ্যে মিসাইলের চুক্তির সমস্থ কিছু পক্রিয়া তৈরি। বিশ্বের সবথেকে এডভান্স মিসাইল সিস্টেম যার কোনো জবাব আমেরিকার কাছেও নেই। যখন আমেরিকার এয়ার ফোর্স সিরিয়ার উপর আক্রমন করেছিল তখন রুশ মিসাইল মোতায়েন করে দিয়েছিল যারপর আশেপাশেও আমেরিকার এয়ার ফোর্সকে দেখতে পাওয়া যায়নি। মিসাইল সিস্টেম বায়ুতে আসা সমস্থ আক্রমনকে প্রতিরোধ করে সেটাকে বায়ুতেই নষ্ট করে দেয়। উদাহরণ স্বরূপ বিশ্বের কোনো দেশের কাছে এমন ফাইটার জেট নেই যা ভারতের আক্রমণ থেকে বাঁচতে পারবে।

পুতিন এই ব্যাপারে চুক্তি সম্পন্ন করতে ভারতে আসছেন। ভারত বিগত ২ বছর ধরে রুশের থেকে এই S 400 নেওয়ার জন্য কথাবার্তা চালাচ্ছিল। বিগত ২ বছর ধরে রুশও ভারতের কার্যকলাপ, উদেশ্য নিয়ে চিন্তা করে ভারতকে S 400 মিসাইল দেওয়া হবে কিনা সেই ব্যাপারে আলোচনা করছিল। তবে শেষমেষ মোদী সরকারের কূটনীতি কাজ করেছে এবং পুতিন মিত্রতার খাতিরে ভারতকে এই সিস্টেম দেওয়ার সিধান্ত নিয়ে ফেলেছে। এবার আর কিছুদিনের মধ্যেই ভারতে S 400 মোতায়েন করা হবে যা যেকোনো দেশের বায়ুসেনার আক্রমণ থেকে ভারতের সুরক্ষা নিশ্চিত করবে।

জানিয়ে দি ভারতের এই কটুনৈতিক ও যুগান্তকারী পদক্ষেপে চীন, আমেরিকা সহ পুরো বিশ্ব অবাক হয়েছে। প্রায় সমস্থ দেশের মিডিয়া ের চুক্তির দিকে তাকিয়ে রয়েছে। মোদী সরকার যে দ্রুতগতিতে ভারতের সুরক্ষা বাহিনীকে মজবুত করছে তা নিয়ে অনেক দেশের কপালে ভাঁজ পড়েছে। কিছুজনের দাবি মোদী সরকার ভবিষ্যতে অক্সাই চীন ও পাক অধিকৃত কাশ্মীর আবার ভারতে ফিরিয়ে আনার জন্য এত দ্রুতগতিতে কাজ করছে।