Press "Enter" to skip to content

আমিরের পর এবার সাইফ !! ভারতকে ভয়ঙ্কর দেশ বলে অভিহিত করলেন সাইফ আলী খান।

সেই বলিউড অভিনেতা যার বিবি কিছুমাস আগে কাঠুয়া কান্ড নিয়ে হিন্দু ধর্মের বিরুদ্ধে প্রচার করছিলেন এবং গোটা বিশ্বকে জানাচ্ছিলেন যে ভারতে মন্দিরে ধর্ষণ করা হয়েছে। এবার সাইফ আলী খানও ভারত সম্পর্কে তার ধারণ জানিয়ে দিয়েছে। ভারতকে খুব ভয়ঙ্কর ও হিংসরো দেশ বলে দাবি করেছে।

সাইফ আলী খান দাবি করেছে যে বর্তমানে দেশের সরকারের বিরুদ্ধে কথা বললে মেরে ফেলা হয়, শুধু তাই নয় সাইফ আলী এর বক্তব্য দুটি আলাদা সম্প্রদায়ের ছেলে মেয়ে বিয়ে করলে সেই বিষয়েও হস্তক্ষেপ করছে সরকার। আপনাদের জানিয়ে রাখি এটা সেই সাইফ আলী খান যিনি কাঠুয়ার সাজানো ঘটনায় পতিবাদ করতে বেরিয়ে পড়লেও গীতা বা পূজা কারোর ক্ষেত্রেই প্রতিবাদে নামেনি। শুধু তাই নয় কিছু মাস আগে যখন ভারতের বন্ধু দেশ ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানইয়াহু ভারত সফরে এসেছিলেন সেই সময় তিনি বলিউড অভিনেতাদের সাথে দেখা করার জন্য একটা সভার আয়োজন করেছিলেন। সেখানে বলিউডের অমিতাভ বচ্চন সহ বড়ো অভিনেতারা উপস্থিত থাকলেও কোনো খান উপস্থিত ছিলেন না। এর কারণ একটাই ইজরায়েল ইহুদিদের দেশ যারা কট্টরপন্থী মুসলিম দেশগুলিকে দাবিয়ে রেখেছিল।

আসলে এই সব খান অভিনেতারা পাকিস্থানিদের বন্ধু(পাকিস্থানি অভিনেতাদের) হতে পারলেও ভারতের সবথেকে ভালো বন্ধু ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করতে পারেন না। এমনকি তুর্কির কট্টরপন্থী জিহাদি রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করার মতো সময় এদের কাছে থাকে কিন্তু ভারতের সবথেকে ভালো বন্ধু ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী এর সাথে দেখা করার সময় নেই। যেখানে ইজরায়েলের মতো দেশ প্রত্যেক যুদ্ধে ভারতকে লেজার গাইডেড মিসাইল দিয়ে ভারতের সাহায্য করেছিল সেই দেশের প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণকে প্রত্যাখান করে এরা পাকিস্থানি অভিনেতা অভিনেত্রীদের দেশে ডাকতে তৎপর হয়ে উঠে। ভারত সেই দেশ যেখানে বিরোধীরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজির মাকে নিয়েও খারাপ কথা বলে, প্রধানমন্ত্রীকে গালিগালাজ করে অপমান করে। ভারত সেই দেশ যেখানে সাইফ আলী খানের বিবি কারিনা খান মন্দিরে ধর্ষণ হয়েছে বলে অপ্রপচার করে বেড়াই। সেই দেশে সম্পর্কেই এখন সাইফ আলী খানের দাবি যে দেশের সরকারের বিরুদ্ধে বললে নাকি মেরে ফেলা হয়। প্রশ্ন উঠছে ভারত ও ভারতের সরকার এতটাই অসহিষ্ণু হলে তারা এখনো বেঁচে আছেন কিভাবে?

সাইফ আলী খান দাবি করেছে যে দুটি অন্য সম্প্রদায়ের ছেলে মেয়ে বিয়ে করলেও সরকার নাক গলায়। এখন আপনাদের মনে করিয়ে দি সাইফ আলী খান দুদুটো হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করলো তাদের ইসলামিকরণ করলো, সরকার কি সাইফ আলী খানকে কোনো সাজা দিয়েছে? এমনকি সাইফ আলী খানের বর্তমান বিবি তো তার মেয়ের বয়সী সেই নিয়েও তো সরকার সাইফ আলী খানকে সাজা দেয়নি। আপনাদের জানিয়ে রাখি সাইফ আলী খানের প্রথম বিয়ে অমৃতার সাথে হয়েছিল সেই সময় কারিনা কাপূর এতটাই ছোট ছিল যে কারিনা সাইফকে বিয়ে নিয়ে অভিনন্দন জানালে সাইফ কারিনাকে ‘ধন্যবাদ ব্যাটা’ বলে উত্তর দিয়েছিল। আর এখন সেই কারিনাকে বিবি বানিয়ে নিশ্চিতে দেশের নান প্রান্তে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এমনকি কারিনা ও সাইফ আলী খান তাদের ছেলের নাম দিয়েছে , যে কোটি কোটি হিন্দুর বিনাশ করেছিল। সরকার যদি এতটাই অসহিষ্ণু হতো তাহলে কেন তার ছেলের নাম পরিবর্তন করতে চাপ দিলো না একথা কি মাথায় আসেনি সাইফ আলী খানের? তবে এই প্রথম নয় এর আগেও বলিউডের খানের দল ভারতকে অসহিষ্ণু বলে অপমান করেছে আবার কখনো পাকিস্থানীদের জন্য মরাকান্না কেঁদেছে। যে দেশের সংখ্যাগুরু সমাজ(হিন্দুরা) এই খানদের বিশ্বে জনপ্রিয় করে তুললো আজ সেই হিন্দুবহুল দেশকেই এদের ভয়ঙ্কর মনে হতে শুরু করেছে।

Source

Source

News Source