Press "Enter" to skip to content

বড় খবর: কানাইহা কুমারের জীবনের ওপর হতে চলেছে ওয়েব সিরিজ, সালমান খান থাকতে পারেন মুখ্য ভূমিকায়।

JNU এর পূর্ব ছাত্র এবং বামপন্থী নেতা কানাইয়া কুমার ( kanhaiya kumar ) যার উপর দেশদ্রোহী মামলা চলছে এবং ভারতীয় সেনাকে ধর্ষনকারী বলার অভিযোগ রয়েছে। এখন সেই কানাইয়া কুমারকে হিরো করার প্রক্রিয়া শুরু হবে। আর সেটার জন্য কার্য করবেন বলিউড অভিনেতা সালমান খান ( salman khan )। সালমান খান একটা ওয়েব সিরিজের পস্তুতি নিচ্ছে। যার ডাইরেক্ট করবেন সালমান খানের বন্ধু আলী জাফর।

এই ওয়েব সিরিজে সালমান খান, বামপন্থী নেতা কানাইয়া কুমারের চরিত্রে অভিনয় করবেন। সালমান খান নিজে কানাইয়া কুমার হিসেবে অভিনয় করবেন এবং তাকে সমাজের হিরো হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করবেন। সালমান খান এই ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে কানাইয়া কুমারকে সৎ, সমাজসেবী, সংঘর্ষকারী, অধিকারের জন্য লড়াই করার ব্যাক্তি হিসেবে দেখানোর চেষ্টা করবেন।

প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, কানাইয়া কুমার সেই ভিড়ের অংশ ছিল যে ভিড় থেকে ‘ভারত তেরে টুকরে হঙ্গে ইনশাল্লাহ ইনশাল্লাহ’ শ্লোগান উঠেছিল। যে ভিড় আতঙ্কবাদী আফজল গুরুর জন্য ভারতের উপর বদলা নেওয়ার কথা বলছিল সেই ভিড়ের অংশ ছিল কানাইয়া কুমার। এখন সালমান খান নিজের লোকপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে কানাইয়া কুমারকে মহান দেখনোর চেষ্টা করবেন।

এখন সালমান খান একটা সিনেমা করছেন যার নাম ভারত, আর কিছুদিন পরেই ভারত তেরে টুকরে হঙ্গে গ্যাং এর হয়ে ওয়েব সিরিজ বের করবেন। সালমান খান এক বিপ্লবী ও সৎ যুবক হিসেবে কানাইয়া কুমারকে দেখানোর চেষ্টা করবেন। স্মরণ করিয়ে দি এটা সেই সালমান খান যিনি ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতিনয়াহুর আমন্ত্রণে মুম্বাই এর এক অনুষ্ঠানে যাননি। ইজরায়েলকে ইসলামিক দেশগুলি পছন্দ করে না সেই কারণে সালমান খানও ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণ এ মুম্বাইতে উপস্থিত হননি। ইজরায়েল ভারতের সবথেকে ভালো বন্ধু কিন্তু বলিউডের তিন খান সেই ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীকে অসম্মান করেছিলেন।