Press "Enter" to skip to content

পাকিস্তানির সাথে হাত মিলিয়ে শো করবেন সালমান খান! বলিউডে ব্যান করার দাবি সোশ্যাল মিডিয়ায়।

সালমান খানকে ভারতের কে না চেনে, তিনি একজন অতি পরিচিত অভিনেতা। আর ভারতের লোকেরা সালমান খানকে কত কিছুইনা দিয়েছে, নাম, সম্মান, টাকা, আর সেই সব কিছু যা আজ সালমান খানের আছে। কিন্তু সালমান খান বরাবরই কিছু এমন কাজ করেছে যার ফলে সে তার ফ্যান ও ভারতের জনগণকে  নিরাশ করেছে। সালমানের নামে অনেক পুলিশ কেসও চলছে বহু বছর ধরে। এছাড়াও অনেকবার সালমান খান নিজের পাকিস্তান প্রেম ও সন্ত্রাস প্রেমকে প্রকাশ করেছে বলে অভিযোগ সামনে এসেছে।

উরি হামলার সময় পাকিস্থানী শিল্পীদের সমর্থন করা হোক বা সন্ত্রাসবাদী ইয়াকুব মেননের সমর্থন করার মামলা হোক, সালমান খান প্ৰায়েই পাকিস্তান ও ইসলামিক সন্ত্রাস প্রেমকে প্রকাশ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এখন আবার একবার সালমান খান ভারত দেশের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলে দাবি উঠেছে। বলা হচ্ছে একদিকে আতঙ্কবাদী পাকিস্তান, ভারত দেশে অশান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছে, ভারতের বিরুদ্ধে গোটা বিশ্বে এজেন্ডা চালাচ্ছে, আর অন্যদিকে সালমান খান একজন আতঙ্কবাদীর জন্য বিদেশ গিয়ে প্রোগ্রাম করছেন।

সালমান খান আমেরিকার হাস্টন শহরে ২৮ আগস্ট ২০১৯-এ একটি প্রোগ্রাম করছে। অভিযোগ এই প্রোগ্রামে সালমান খানের সাথে আরেকজন পাক প্রেমী গায়ক মিকা সিং অংশ নিচ্ছেন। বিশেষ কথা হলো অনুষ্ঠানটি যে ব্যক্তি আয়োজন করবেন তার নাম হলো রেহান সিদ্ধিকী। ইনি একজন পাকিস্থানী যে পাকিস্তানি আতঙ্কবাদী অর্থাৎ ISI এর ও দাউদের খুব ঘনিষ্ট। ২৮ আগস্ট এই অনুষ্ঠানটি হাস্টন শহরে হবে, প্রোগ্রামটিকে পাকিস্থানী রেহান সিদ্ধিকি আয়োজিত করছে, যেখানে সালমান খান পারফরমেন্স করবেন। দেশের সাথে বেইমানি করার অভিযোগ তুলে সালমান খানকে ব্যান করার দাবি করেছে AICWA এর কাছে।

একদিকে সন্ত্রাসবাদী দেশ পাকিস্তানি ভারতের সঙ্গে ব্যাবসায়িক সন্ধি ভেঙে দিয়েছে আর অন্যদিকে সালমান খানের মতো লোক পাকিস্তানিদের জমিয়ে সাহায্য করছেন। পাকিস্তানিদের জন্য প্রোগ্রাম করছে, ইয়াকুব মেনন এর সমর্থনকারী সালমান খান আবার একবার ভারত দেশের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করলেন বলে দাবি।
যতদিন ভারতে সালমান খান ও বিভিন্ন কট্টরপন্থী থাকবে ততদিন ভারতের লোকেদের সাথে এরা এই ভাবে বিশ্বাসঘাতকতা করে যাবে ও ভারত বিরোধী পদক্ষেপ নিয়ে ভারতের ক্ষতি করার চেষ্টা করে যাবে। এমন ধরনের মন্তব্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে উঠে আসছে।