Press "Enter" to skip to content

সময় থাকতে শুধরে যাও নাহলে ঘরে ঢুকে মেরে আসবো: আতঙ্কবাদীদের উদ্যেশে বললেন জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল।

পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে (POK) ভারতীয় সেনা দ্বারা সন্ত্রাসবাদীদের লঞ্চ প্যাড ধ্বংস করার পরে জম্মু ও কাশ্মীরের গভর্নর সত্যপাল মল্লিক সন্ত্রাসী সংগঠন গুলিকে সতর্কবার্তা দিয়েছেন। তিনি সোমবার বলেন যে সন্ত্রাসীরা যদি তাদের উদ্দেশ্য পরিবর্তন না করে তবে আমরা আগের তুলনায় আরও বৃহত্তর স্কেলে পদক্ষেপ নেব। যদি প্রয়োজন হয় আবারও সেনা pok এর অভ্যন্তরে প্রবেশ করবে এবং সন্ত্রাসীদের লঞ্চ প্যাড ধ্বংস করবে। মল্লিক  শ্রীনগরে সাংবাদিকদের বলেছিলেন যে কাশ্মীরের যুবকরা যারা এই সন্ত্রাসী সংগঠনগুলিকে সমর্থন করছে তারা এই সব করার পরে কী পেয়েছে তা ভেবে দেখা উচিত। ১ নভেম্বর এর পরে এই রাজ্যের পরিস্থিতি পুরোপুরি বদলে যাবে।

 

এক সাংবাদিক রাজ্যপালকে জিজ্ঞাসা করে বলেন, POK এর উপর অপারেশনে ভারতের সেনা বফোর্স গান ব্যাবহার করেছে শোনা যাচ্ছে? উত্তরে রাজ্যপাল বলেন কেন করবো না, এরা শুধরে গেলে ভালো নাহলে ভেতরে গিয়ে আতঙ্কবাদীদের ক্যাম্প ধ্বংস করে দেব। জানিয়ে দি, জম্মু-কাশ্মীর থেকে ধারা ৩৭০ অপসারণ এর ক্ষেতে রাজ্যপাল সত্যপাল মল্লিকের বড়ো ভূমিকা ছিল। আর এখনও উনি জম্মু-কাশ্মীরের জন্য কাজ করে চলেছেন। উনি বলেন রাজ্যে বিভিন্ন ধরণের উন্নয়নমূলক কাজের প্রচার করা হচ্ছে, যুবকদের জন্য চাকরির সন্ধান করা হচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে এই যুবকদের এখনও সময় আছে, তারা সবকিছু ছেড়ে ফিরে আসতে পারে। আমরা চাই তারা এই রাষ্ট্রকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের সাথে একসাথে কাজ করুক। কিছুদিন আগে সত্যপাল মল্লিক পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরকে (pok)  ভারতে একীকরণের জন্য নিজের রোডম্যাপ উপস্থাপন করেছিলেন। উনি বলেছিলেন যে ভারত কোনও শক্তি ব্যবহার না করেই সেই অঞ্চল দখল করতে পারবে।

একই সঙ্গে, তিনি আত্মবিশ্বাস ব্যক্ত করেছিলেন যে জম্মু-কাশ্মীরের পরিকল্পিত উন্নয়ন দেখে POK এর জনগণ ‘বিদ্রোহী’ হয়ে উঠবে। মল্লিক এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, কিছু মন্ত্রী পাকিস্তান থেকে পি.ও.কে বলপূর্বক ফেরত নেওয়ার চেষ্টা করছে। তিনি বললেন যে গত 10-15 দিনের জন্য আমি আমাদের অনেক মন্ত্রী  পিওকে আক্রমণ করে সেটিকে ফিরিয়ে নেওয়ার কথা বলছে। আমি বিশ্বাস করি যে যদি পিওকে পরবর্তী লক্ষ্য হয় তবে আমরা এটি জম্মু ও কাশ্মীরের উন্নয়নের ভিত্তিতে নিতে পারি।

মল্লিক বলেছিলেন যে আমরা যদি জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষকে ভালবাসা ও শ্রদ্ধা জানাতে পারি এবং তাদের সন্তানদের ভবিষ্যত সুরক্ষা করতে পারি, উন্নতি ও সমৃদ্ধি বয়ে আনতে পারি তবে আমি নিশ্চয়তা দিতে পারি যে এক বছরের মধ্যে পিওকে তে বিদ্রোহ হবে এবং আপনি কোনও দ্বন্দ্ব ছাড়াই এটি পেতে সক্ষম হবেন। তখন pok এর বাসিন্দারা নিজেরাই বলবেন যে তারা ভারতে আসতে চায়। এটি POK দখলের জন্য আমার রোডম্যাপ।

ইমরান খান পাকিস্তানীদের জিহাদের জন্য কাশ্মীরে না যাওয়ার সতর্ক করেছেন। দেশবাসীকে কাশ্মীরের জনগণকে ভালবাসা ও শ্রদ্ধার সাথে আচরণ করার আহ্বান জানিয়ে মল্লিক বলেছিলেন যে কাশ্মীরি শিক্ষার্থীদের সহায়তা করার জন্য প্রতিটি রাজ্যে অফিসার মোতায়েন করা হয়েছে। তিনি বলেছিলেন যে ২২,০০০ কাশ্মীরি শিক্ষার্থী দেশের বিভিন্ন রাজ্যে পড়াশোনা করছে এবং তাদের সাথে ভালো আচরণ করা উচিত। কাশ্মীরের জনগণের সাথে ভালবাসা ও শ্রদ্ধার সাথে আচরণ করা উচিত।

you're currently offline