Press "Enter" to skip to content

J&K তে পুনরায় লাগু হোক ধারা 370, এই দাবি নিয়ে আদালতে পৌঁছেছিল রবার্ট ভাদ্রার আত্মীয়! ধমক দিল আদালত।

J&K থেকে ভারত সরকার ধারা 370 বিলুপ্ত করে দিয়েছে। কিন্তু এই ইস্যুতে বিতর্ক থামার নাম নিচ্ছে না। একের পর এক আপত্তিজনক মন্তব্য লাগাতার আসছে। ভারতের বিরুদ্ধে যত গতিবিধি হয় তার কানেকশন পাকিস্তান বা কংগ্রেসের সাথে কোনো না কোনো ভাবে জুড়েই যায় বলে অভিযোগ সামনে এসেছে। ৫ আগস্ট ভারত সরকার অনুচ্ছেদ 370 টি জম্মু কাশ্মীর দিয়ে সরিয়ে দেয় ও দুটি কেন্দ্র শাসিত প্রদেশ বানিয়ে দেয়। জম্মু কাশ্মীরে আরেকটি সংবিধান আর আরেকটি চিহ্ন লাগু হয়ে গেছে। কিন্তু কংগ্রেসের এই পদক্ষেপ পছন্দ হয়নি। কাশ্মীরের কট্টরপন্থী হোক কিংবা পাকিস্তান হোক কিংবা কংগ্রেস বা তার সহযোগী হোক, ভারতের সঙ্গে কিছু ভালো হলে এনাদের পছন্দ  হয় না বলে অভিযোগ সামনে এসেছে।

কারণ ধারা 370 কে ভারত সরকার সমাপ্ত করে দেওয়ায় রবার্ট বাড্রায়ের একজন আত্মীয় সুপ্রিম কোর্টে পৌঁছে যায়।  সরকারের সিদ্ধান্তকে বাতিল করে পুনরায় জম্মু কাশ্মীরে আবার 370 কে লাগানো যেতে পারে, এই উদ্যেশে আদালতে হাজির হয়েছিল রবার্ট, প্রিয়াঙ্কা ভাদ্রার এক আত্মীয়। গান্ধী পরিবার ও ভাদ্রার ঘনিষ্ট ব্যাক্তি আদালতে গিয়ে সরকারের ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের বিরোধ করেছে। যার জন্য অনেকে কংগ্রেসকে দেশ বিরোধী, পাকিস্তানের সাথে সংযোগ আছে ইত্যাদি বলে মন্তব্য করেছেন।

রবার্ট ভাড্রার একজন বোন আছে যার নাম মনিকা বাড্রা তার স্বামী যার নাম তহেসীন  পুনাওয়ালা, এই ব্যক্তি সুপ্রিম কোর্টে ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আবেদন করে আর দাবি করে যাতে জম্মু কাশ্মীরে আবার ধারা 370 টি লাগু করা হয়। নহেসীন  পুনাওয়ালার আবেদনটি সুপ্রিম কোর্ট দেখে এবং  তাকে একটা বড়ো ধমক দেয়। আদালত ওই ব্যক্তিকে বলে- আপনি কে! সরকারের উপর ভরসা করো, এটি সংবেদনশীল মামলা, আমরা এর উপর কোনো শুনানি করতে পারি না।