Press "Enter" to skip to content

অ্যান্টি উপগ্রহ মিসাইল তৈরির জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদীকে ক্রেডিট দিলেন দেশের প্রমুখ বিজ্ঞানী!

মিশন শক্তির কৃতিত্ব মোদী চাননি। উনি এই কৃতিত্ব ইসরো আর ডিআরডিও কে দিয়েছেন। উনি দেশের সেই বৈজ্ঞানিক দের এই কৃতিত্ব দিয়েছেন যাদের নিরলস প্রচেষ্টায় আজ ভারত মহাকাশ শক্তির দেশ গুলোর মধ্যে নামাঙ্কিত করলো। উনি এর শ্রেয় সমগ্র ভারতবাসীকে দিয়েছেন। উনি একবারও বলেন নি, এর শ্রেয় মোদী সরকার অথবা এনডি এ সরকারের। আর এর মধ্যে সবথেকে আশ্চর্যজনক ব্যাপার হল। ১৯৬২ সালে দেশে নেহেরু সরকার থাকাকালীন মিশন শক্তি নিয়ে গবেষণা শুরু হয়। কিন্তু তারপর ২০১৪ পর্যন্ত ৫২ বছর আর বাজপেয়ী সরকারের ৫ বছর বাদ দিলে ৪৭ বছরেও এই মিশনকে সম্পুর্ন করা যায়নি! সম্পুর্ন করা দূরের কথা একটা পরীক্ষণ ও করা হয়নি। প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালে ভারতের কাছে সেই ক্ষমতা চলে এসেছিল যে বিজ্ঞানীরা আন্টি উপগ্রহ মিসাইল তৈরি করতে পারতো। কিন্তু সরকারের অনুমতির অভাবে কিছুই সম্ভব হয়নি।

আজ নরেন্দ্র মোদী দেশের জনতার সামনে এসে ঘোষণা করেন যে আজ মহাকাশে ভারত বড় উপলদ্ধি লাভ করেছে। এখন বহুজন এই উপলদ্ধির সামান্যতম ক্রেডিট নরেন্দ্র মোদীকে দিতে রাজি নয়। জানিয়ে দি, ভারতে এই প্রজেক্টের উপর কাজ তখন শুরু হয়েছিল যখন DRDO এর প্রমুখ ছিলেন VK সারস্বত। আজ বিরোধীরা ভারতের উপলদ্ধির ক্রেডিট নরেন্দ্র মোদীকে দিতে রাজি নয়। কিন্তু যার সময় এই প্রজেক্ট এর কাজ শুরু হয়েছিল তিনি নিজে এই প্রজেক্টের ক্রেডিট প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দিয়েছনে। VK সারস্বত এন্টি স্যাটেলাইট মিসাইল তৈরির ক্রেডিট প্রধানমন্ত্রী মোদীকে দিয়েছেন।

VK সারস্বত এর টিম এই প্রজেক্টের কাজ শুরু করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী কখোনই এই প্রজেক্টের ফাইল আটকাতে দেননি। নরেন্দ্র মোদী এই প্রজেক্টকে দ্রুত গতি প্রদান করেন। যদিও আজ প্রধানমন্ত্রী মোদী প্রজেক্ট এর শ্রেয় বিজ্ঞানীদের দিয়েছেন। অন্যদিকে দেশের প্রমুখ বিজ্ঞানীরা শ্রেয় নরেন্দ্র মোদীকে দিয়েছেন। অবশ্য কংগ্রেস পার্টি এই এন্টি মিসাইল তৈরির শ্রেয় নেহেরুকে দিয়েছে।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.