Press "Enter" to skip to content

বড় খবর: কট্টরপন্থীদের বড় ঝটকা দিল মোদী সরকার! কাশ্মীর থেকে আলাদা করে দেওয়া হলো লাদাখ।

এবার থেকে জম্মুকাশ্মীরের পুরো নাম জম্মুকাশ্মীর ও লাদাখ, এই কাজ আজ সম্পূর্ণ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একটা বড় কাজ করে দিয়েছেন। আসলে জম্মুকাশ্মীর নামক যে রাজ্য রয়েছে সেখানে পুরো রাজ্যে সমস্যা নেই। সমস্যা শুধুমাত্র কাশ্মীরে এলাকায়। কাশ্মীর মুসলিম বহুল এলাকা এবং এখান থেকে হিন্দুদের বিতাড়ন করে সম্পূর্ণ ইসলামিকরণ করে দেওয়া হয়েছে।

জম্মুকাশ্মীরের জম্মু এলাকা, ভারতের অন্যান সাধারন রাজ্যের মতোই। জম্মুতে হিন্দু বহুসংখ্যক এবং সেখানে আতঙ্কবাদ বা জিহাদ নেই। মূল সমস্যা কাশ্মীরে এবং পুরোটাই জিহাদের মামলা। জম্মুকাশ্মীরে দুটো ডিভিশন ছিল একটা জম্মু আরেকটা লাদাক। দুই ডিভিশনের প্রশাসন আলাদা আলাদা ছিল। জম্মু ডিভিশনে আলাদা প্রশাসন এবং কাশ্মীর ডিভিশনে আলাদা প্রশাসন ছিল।

অন্যদিকে লাদাখকে কাশ্মীর ডিভিশনেই রাখা হয়েছিল। অর্থাৎ লাদাখের বর্তমান, ভবিষ্যতের সমস্থকিছুই কাশ্মীর থেকে কট্টরপন্থীরা ঠিক করতো। মূলত লাদাককে নিয়ন্ত্রণ করতো কাশ্মীরের প্রশাসন। তবে এবার নরেন্দ্র মোদী লাদাখকে কাশ্মীর ডিভিশন থেকে আলাদা করে দিয়েছেন। কাশ্মীরের কবজা থেকে লাদখকে মুক্ত করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

লাদাখের মানুষ তাদের লোকসভা সাংসদ বিজেপিকে জিতিয়েছিল। উধমপুর ও জম্মু ছাড়াও লাদাখ থেকে বিজেপি জয়লাভ করেছিল। এখানের মানুষ বিজেপিকে জিতিয়েছিল আর এখন বিজেপি লাদাখের মানুষের মনের আশা পূরণও করে দিয়েছে। বিজেপি লাদাখের মানুষকে যে পতিশ্রুতি দিয়েছিল তা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে। এবার থেকে রাজ্যকে জম্মু ও কাশ্মীরের বদলে জম্মু ও কাশ্মীর ও লাদাখ বলা হবে। লাদাখের সমস্থ সিধান্ত কাশ্মীর থেকে হতো, এবার সমস্থ সিধান্ত লাদাখ থেকে হবে। মোদী সরকার দেশের জন্য যতগুলি বড় সিধান্ত নিয়েছেন তার মধ্যে এটাকে একটা অবশ্যই ধরা হবে বলে দাবি রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.