Press "Enter" to skip to content

ফুলনদেবীর হত্যাকারী শের রানা সিং বললেন- আমি PAK গিয়ে আতঙ্কবাদী মাসুদ আজহারকে হত্যা করে ফিরে আসবো।

দেশের প্রত্যেক মানুষের মনে পাকিস্থানের প্রতি আক্রোশ রয়েছে। জম্মুকাশ্মীরের পুলবামাতে ইসলামিক আতঙ্কবাদী হামলার পর ৪৪ জওয়ান বলিদানি হয়েছিল। যারপর থেকে পুরো দেশ পাকিস্থানের উপর ক্রোধিত হয়ে রয়েছে। দেশের নানা প্রান্ত থেকে ভিন্ন ভিন্ন প্রতিক্রিয়া সামনে আসছে। বন্দিত কুইন নামে পরিচিত ফুলনদেবীর হত্যাকাণ্ডের দোষী তথা রাষ্ট্রীয় জনলোক পার্টির সভাপতি শের সিং রানাও পুলবামা হামলা নিয়ে মুখ খুলেছেন। বলেছেন যদি সরকার উনার একটু সাহায্য করে তাহলে উনি তার সাথীদের সঙ্গে নিয়ে পাকিস্থানে ঢুকে যাবেন।

শের সিং রানা বলেছেন উনি তার সাথীদের নিয়ে পাকিস্থানে ঢুকে যাবেন এবং মাসুদ আজহার ও হাফিজ সাঈদকে হত্যা করবেন। জানিয়ে দি, শের সিং রানা ২০০৪ সালে তিহাড় জেল থেকে পালিয়ে আফগানিস্তান গেছিলেন। NBT এর রিপোর্ট অনুযায়ী, আরজেপি এর প্রধান শের সিং রানা বলেছেন আমি ২০০৪ সালে আফগানিস্তান গেছিলাম এবং সেখান থেকে শেষ ভারতীয় সম্রাট পৃথ্বীরাজ চৌহানের অস্থি নিয়ে ফিরেছিলাম।

উনি মিডিয়াকে বলেন, যদি আজও সরকার আমাকে একটু সাহায্য করে দেয় তাহলে আমি প্রতিজ্ঞা করে বলতে পারি যে হাফিজ সাঈদ হোক বা মাসুদ আজহার হোক অথবা  দাউদ ইব্রাহিম হোক আমি এদেরকে হত্যা করবো। কারণ এদেরকে পাকিস্থান থেকে ধরে আনা সম্ভব নয়। তাই আমি ওদেরকে সেখানেই শেষ করে দেব। রানা বলেছেন আমি ১৩ বছর তিহাড় জেলে কাটিয়েছি, সেখানে বহু আতঙ্কবাদী আমার সাথে ছিল।

উনি আরো বলেন, আফজল গুরুকে আমার সামনে জেল নাম্বার ৩ তে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল। যখন আফজল গুরুকে ফাঁসি দেওয়ার জন্য জল্লাদ পাওয়া যাচ্ছিল না, তখন আমি ডিজিকে সাহেবকে চিঠি লিখে জানিয়েছেছিলাম যে আমি আফজল গুরুকে ফাঁসি দিতে রাজি। শের সিং সরকারের কাছে আবেদন করেছে যে পাকিস্থানকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য তাকে ব্যাবহার করা হোক। শের সিং রানা চাই যে তার জীবন যেন দেশের জন্যেই কাজে লাগে।

8 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.