Press "Enter" to skip to content

তিন তালাক ইস্যুতে খোলাখুলিভাবে বিজেপিকে সমর্থন দিল একমাত্র এই পার্টি! ২০১৯ নির্বাচন নিয়ে পাওয়া গেল নতুন ইঙ্গিত।

সম্প্রতি লোকসভায় বড় হাঙ্গামার ঘটনা সামনে এসেছিল, যার মূলত কারণ ছিল বিল। এই বিলের উপর লোকসভায় বিভিন্ন পার্টির নেতাদের মধ্যে জোরদার ভাষণবাজি চলেছিল। জানিয়ে দি, দেশের আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ কুপ্রথা ত্রিপিল তালাকের উপর লোকসভায় বিধেয়ক পেশ করেছিলেন। যা দেশের বহু পার্টির মাথা যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। হতাশ করার বিষয় এই যে, এই ইস্যুতে কোনো পার্টি ভারতীয় জনতা পার্টির সাথে একমত হয়নি বরং চর্চা চলাকালীন বহু নেতা সদন পরিত্যাগ করে চলে যান। অবশ্য এতে দেশের ক্ষমতাধারী পার্টি বিজেপির উপর এর কোনো প্রভাব পড়েনি। তিন তালাক লাগাতার প্রথা বন্ধের জন্য জোর প্রদান করতে শুরু করে, যাতে মহিলারা এই কুপ্রথা থেকে মুক্ত হতে পারে।

এই পরিস্থিতি যখন কোনো পার্টি বিজেপির সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বলার জন্য সামনে আসতে পারেনি তখন এক পার্টি সামনে এসে বিজেপিকে পূর্ন সনর্থন জানায়। কঠিন পরিস্থিতিতে যে পার্টি সামনে এসে বিজেপিকে সমর্থন জানায় সেই পার্টির নাম শিবসেনা। এক সময়ে দেশের সবথেকে  বড় হিন্দুত্ববাদী পার্টি হিসেবে পরিচিত এই শিবসেনা তিন তালাক ইস্যুতে বিজেপিকে পূর্ন সমর্থন জানিয়েছে। এমনিতে শিবসেনা ও বিজেপির মধ্যে মনোমালিন্য এর খবর বার বার জনগণের সামনে আসে।  কিন্তু লোকসভায় বিজেপিকে সমর্থন জানিয়ে শিবসেনা তার ইঙ্গিত স্পষ্ট করে দেয়।

হিন্দুত্ববাদীদের মন্তব্য, বিজেপি ও শিবসেনার মধ্যে দ্বন্দ লেগে থাকার যে খবর দেশের দালাল মিডিয়া প্রকাশ করে তা অর্ধসত্য তার প্রমান এই ঘটনার পর আরো একবার পাওয়া গেলো। জনগণের চোখের সামনে বিজেপিকে একঘরে করে দেওয়ার জন্য দালাল মিডিয়া খবর পরিবেশন করে।

অবশ্য শিবসেনা, বিজেপির কাছে একটা বড় দাবি রেখেছে। দাবি অনুযায়ী, বিজেপি যেভাবে তিন তালাক ইস্যুতে মুসলিম মহিলাদের জন্য লড়াই করেছে সেই একইভাবে যেন অযোধ্যায় রাম মন্দির ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা সরানোর জন্য লড়াই শুরু হয়। এই দুই মূল ইস্যুতে বিজেপি যেন শীঘ্রই কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করে এমনটাই দাবি শিবসেনার। এতকিছুর পরে এখন দেখার এটাই যে শিবসেনা ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে সমর্থন করে নাকি বিরোধ করে।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.