Press "Enter" to skip to content

Sonia Gandhi Exposed : হেলিকপ্টার কেলেঙ্কারিতে সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুলের নাম উল্লেখ করলো দালাল ক্রিশ্চিয়ান মিশেল

বিজেপি সমর্থকরা অনেক দিন ধরেই অভিযোগ করে আসছিল যে, কংগ্রেস ভিভিআইপি হেলিকপ্টার নিয়ে একটা বড়সড় দুর্নীতি করেছে। আর এবার বিজেপির করা সেই অভিযোগ সত্যি হয়ে উঠল। পাপ্ত খবর অনুযায়ী, কংগ্রেসের আমলে হওয়া ভিভিআইপি হেলিকপ্টার কেলেঙ্কারিতে সরাসরি নাম জড়িত হয়ে গেল গান্ধী পরিবারের। আজ এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরের তরফে দিল্লীর আদালতে একটা তথ্য দায়ের করা হয়। সেই তথ্যে বলা হয় যে, এই মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত ক্রিস্টিয়ানো মিশেল গোয়েন্দাদের জেরার সামনে মাথানত করতে বাধ্য হয়। এবং অবশেষে উনি মামলার সাথে যুক্ত মিসেস গান্ধী এবং তার ছেলের নাম উল্লেখ করেন। তবে এটা এখন ঠিক পরিস্কার হয়ে উঠেনি যে ঠিক কোন বিষয়ের প্রেক্ষিতে তাদের দুজনের নাম উঠে এল।

Christian Michel

কিন্তু এই মুহূর্তে ভারতবর্ষের মানুষের কাছে এটা জলের মত পরিস্কার হয়ে গিয়েছে যে, ক্রিস্টিয়ান মিশেল যে দুজন ব্যাক্তির নাম উল্লেখ করেছেন তারা হলেন সোনিয়া গান্ধী এবং তার পুত্র তথা কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।উল্লেখিত, এই ক্রিস্টিয়ান মিশেল হলেন UPA সরকারের আমলে ঘটে যাওয়া ভিভিআইপি হেলিকপ্টার ক্যালঙ্কারীর অন্যতম অভিযুক্ত। কিন্তু ভারত সরকারের কাছে এর সমস্ত প্রমাণ থাকার সত্ত্বেও কংগ্রেসের মুখোশ খোলার জন্য তাকে ভারতে আনা সম্ভব হচ্ছিল না। অবশেষে মোদী সরকারের দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টা এবং দক্ষতার ফলে মিশেল কে UAE থেকে ভারতে আনা সম্ভব হল।এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টর ৭ দিন ধরে নিজেদের হেফাজতে রেখেছিলেন ক্রিস্টিয়ান মিশেল কে। অবশেষে শনিবার তাকে দিল্লির পাটিয়ালা হাউস আদালতে পেশ করা হয়। তাকে পেশ করার পর নিজেদের হেফাজতে নেন ইডি। ইডির সূত্রে জানানো হয়েছে যে জেরার মুখে মিশেল একব্যাক্তির কথা উল্লেখ করেন তার নাম শুরু R দিয়ে।

তারপরই R নামের এই ব্যাক্তির আসল পরিচয় জানার জন্য তাকে নুতন করে ফের একবার রিমান্ডে নিতে চান ইডির আধিকারিকরা।আর এরপরই ইডির তরফে আদালতের কাছে আবেদন করা হয় যে, নিষেধাজ্ঞা লাগাতে হবে মিশেলের উপর যাতে তাকে তার আইনজীবীর সাথে দেখা করতে না দেওয়া হয়। এই আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত তার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে জানিয়েছে যে, এখন আর সে আগের মত এক ঘন্টা করে নিজের আইনজীবীর সাথে দেখা করতে পারবে না, তার পরিবর্তে তাকে মাত্র ১৫ মিনিট করে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হবে।কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন UPA সরকার থাকাকালীন ১২ টি ভিভিআইপি হেলিকপ্টার কেনার জন্য চুক্তি করা হয় ইতালিয়ান কোম্পানি আগস্টা ওয়েস্টল্যান্ডের সাথে। আর এর জন্য সরকারি কোষাগার থেকে নেওয়া হয়েছিল ৩৬০০ কোটি টাকা। আর এই পুরো আর্থিক লেনদেনটি করা হয় ব্রিটিশ নাগরিক ক্রিস্টিয়ান মিশেলের মাধ্যমে।

কিন্তু এই চুক্তিতে কংগ্রেসের আর্থিক দুর্নীতির কথা সামনে চলে আসে আর এর ফলেই ২০১৪ সালে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর এই চুক্তি বাতিল করে দেন। এবং এই চুক্তিতে হওয়া অর্থিক দুর্নীতির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে। এর ভিত্তিতেই গ্রেপ্তার করা হয় মিশেল কে। আর একে একে বেরিয়ে আসে কংগ্রেসের হেভিওয়েট নেতামন্ত্ৰীদের নাম।
#অগ্নিপুত্র

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.

you're currently offline