Press "Enter" to skip to content

চীনকে ঝটকা দিয়ে আমেরিকা ভারতকে দিলো STA-1 এর মর্যাদা।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কাছে ভারত যাতে সবরকমের সুবিধা পাই এবং মহাকাশে অসামরিক কাজে তাদের দরকারের জন্য সমস্ত রকম ব্যবহৃত সর্বাধুনিক প্রযুক্তি যাতে তারা সহজেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে কিনতে পারে সেই সুযোগ করে দেবার জন্য ট্রাম্প প্রশাসনের তরফে স্ট্যাটেজিক ট্রেড অথরাইজেশন-১ এর মর্যাদা দেওয়া হল ভারতকে। এর আগে দক্ষিণ এশিয়ার কোনো দেশ এই মর্যাদা পায় নি। ভারতবর্ষ দক্ষিণ এশিয়া মহাদেশের প্রথম দেশ যা এই মর্যাদা পেল । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এর আগে মাত্র ৩৬ টি দেশকে এই মর্যাদা দিয়েছেন। ভারত ৩৭তম দেশ হিসাবে সেই তালিকায় প্রবেশ করল। স্ট্যাটেজিক ট্রেড অথেনটিকেশন-১ ব্যাপার টি আসলে কী? আপনাদের জানিয়ে রাখি এটিকে এক ধরনের লাইসেন্সও বলা যেতে পারে।

কোনো দেশ যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে কিছু প্রযুক্তি সামগ্রী কিনতে চাই তাহলে তাদেরকে অনেক সময় কিছু বিধিনিষেধ এর মধ্যে পড়তে হয়। কিন্তু যদি কোনো দেশের কাছে এই স্ট্যাটেজিক ট্রেড অথেনটিকেশন-১ এর মর্যাদা থাকে তাহলে সেই দেশকে বিধিনিষেধ থেকে মুক্ত হিসাবে গন্য করা হয়। উল্লেখ্য এই বিশেষ মর্যাদাটি চিন এবং ইসরায়ল এর মতন দেশকেও এখন দেয় নি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এত দিন অব্দি শুধু যারা এনএসজি গ্রউপের সদস্য তারাই পেত এই মর্যাদা। কিন্তু ভারত এনএসজি গ্রুপে না থাকার সত্ত্বেও ভারতকে ওই মর্যাদা দেওয়া

হচ্ছে তার কারন হিসাবে আন্তর্জাতিক মহলের একাংশ মনে করেন যে, ট্রাম্প প্রশাসনের প্রথা ভেঙে ওই পদক্ষেপ নেওয়ার কারন হল তারা চাই চিন চাপে থাকুক। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের পরম বন্ধু ইজরায়েলকেও এনএসজি গ্রুপে না থাকার কারন দেখিয়ে ওই মর্যাদা দেয়নি। কিন্তু তারা ভারতকে দিল তাই এর পিছনে আসল বিষয়টি সহজেই অনুমেয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এর তরফে জানানো হয়েছে যে এর ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত একে অপরের সাথে একটি গুরুত্বপূর্ণ সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

উল্লেখ্য কোরিয়া ও জাপানের মতো উন্নতিশীল দেশ গুলি তাদের এই তালিকায় জায়গা পেয়েছে।
উল্লেখ্য, দক্ষিণ এসিয়ার ভারত, চিন ও পাকিস্তান এই তিনটি গুরুত্বপূর্ণ দেশ রয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে এই দেশ গুলির শুধু মাত্র রাজনৈতিক দিক দিয়েই নয় বরং ব্যাবসায়িক দিক দিয়েও সমান গুরুত্ব রয়েছে। তবে আন্তর্জাতিক মহল মনে করছেন যে, স্ট্যাটেজিক ট্রেড অথেনটিকেশন-১ এর ফলে ভারত যেমন সুবিধা পাবে তেমনি এতে অনেকটাই চাপে পড়বে চিন।
#অগ্নিপুত্র