Press "Enter" to skip to content

রাজ্য সরকার কোন মহিলার সুরক্ষা ব্যাবস্থা করবেনা! জানালেন কেরলের বামপন্থী মন্ত্রী

কোচিঃ শবরীমালা () মন্দির মামলায় কেরল (Kerala) এর বামপন্থী (Communist) সরকার পিছু টান দিয়ে জানালো, মন্দিরে যাওয়া ১০ থেকে ৫০ বছরের মহিলাদের কেউ আটকাবে না, কিন্তু তাঁদের সুরক্ষা দেওয়ার কোন পরিকল্পনা আমাদের নেই। সুপ্রিম কোর্ট বৃহস্পতিবার এই মামলা সাত বিচারকের সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠিয়ে দিয়েছে। শীর্ষ আদালত এর আগে মহিলাদের পক্ষে সিদ্ধান্ত দিয়ে মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশ বৈধ বলে জানিয়েছিল। কিন্তু এরপর সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে পুনর্বিচারের আবেদন দাখিল হয়েছিল, এই আবেদনে শুনানির সময় সুপ্রিম কোর্ট শবরীমালা মামলা সাত বিচারকের সংবিধানিক বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়।

কেরলে মন্দির মামলার সাথে যুক্ত রাজ্যের বাম মন্ত্রী কে. সুরেন্দ্রান বলেন, শবরীমালা মন্দিরে সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী, সমস্ত মহিলারাই প্রবেশ করতে পারবেন। কিন্তু সরকার কোন মহিলাকে সুরক্ষা দিতে পারবেনা। তৃপ্তি দেশাই এর মতো সমাজকর্মী শবরীমালা মন্দিরকে যেন নিজের ক্ষমতা প্রদর্শনের জায়গা না ভাবে। যদি উনি আবার জোর খাটিয়ে শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে চান, তাহলে আগে ওনাকে সুপ্রিম কোর্টের কাছে গিয়ে নিজের সুরক্ষা সুনিশ্চিত করতে হবে।

একটি প্রেস কনফারেন্সে কেরলের বাম মন্ত্রী কে. সুরন্দ্রন জানান, সরকার গেট ভেঙে শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করার জন্য মহিলাদের উৎসাহিত করবেনা। শবরীমালা মন্দিরে স্বাভাবিক পরিস্থিতি বজায় রাখা দরকার। বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্ট শবরীমালা মন্দিরে সমস্ত আয়ুর মহিলাদের প্রবেশ করা মামলায় পুনর্বিচারের আবেদন সাত বিচারকের সাংবিধানিক বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়।