Press "Enter" to skip to content

মমতা পশ্চিমবাংলাকে আতঙ্কবাদীর ফ্যাক্টরি বানিয়ে দিয়েছে: সুব্রামানিয়াম স্বামী।

বিজেপি সাংসদ সুব্রামানিয়াম স্বামী নিজের ের জন্য প্রায় সময় খবরের শিরোনামে। এখন আরো একবার বিরোধীদের রাজনীতি ও সম্প্রদায়ের সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে শিরোনামে উঠে এসেছেন। বুধবার দিন সুদর্শন টিভিতে এক ইন্টারভিউ দেওয়ার সময় , উদ্দিন ওয়েসী ও মমতা ব্যানার্জীর বিরুদ্ধে মুখ খোলেন। সম্প্রতি তার এক ভাষণে বলেন, ‘সুব্রামানিয়াম স্বামী খোলাখুলি মুসলিমদের একতা নষ্ট করার কথা বলেছেন।’ এই নিয়ে সুদর্শন টিভিতে স্বামীকে প্রশ্ম করা হলে তিনি বলেন আমি ঠিকই বলেছি এতদিন হিন্দুদের ভাগ করে মুসলিমদের একতার কথা বলে হয়েছে, এবার মুসলিমদের সিয়া, সুন্নি, বোরা বিভিন্ন জাতিতে ভাগ করে হিন্দুদের একত্র করা উচিত।

সুব্রামানিয়াম স্বামী বলেন, ‘সিয়া, সুন্নি,বোরা, আহমেদিয়া, সুফি এই সমস্থ মুসলিম জাতীদের মধ্যে পাকিস্থান, বালুচিস্তানে ফাটল ধরেই রয়েছে। ওয়াহাবি জাতি বাকিদের উপর রাজ চালাতে চাই এবং মারকাট করতে চাই।’ স্বামী বলেন, যে দেশে সংখ্যাগুরুরা একত্রিত নয় সেই দেশে উগ্রবাদী মুসলিমরা নান দাবি উঠায়(যেমনটা ভারতে) আর যেখানে সংখ্যাগুরুরা একত্রিত সেখানে এরা আলতাকিয়া করে অর্থাৎ যা বলা হয় সেটাই মেনে নেয়।

ভারতে যেদিন সব হিন্দুরা এক হবে সেদিন উগ্রবাদী মুসলিমরা মুখ খুলতেও সাহস পাবে না বলে দাবি করেন স্বামী। ওয়েসীর দুই ভাইয়ের উপর আক্রমণ করতে করতে সুব্রামানিয়াম স্বামী বলেন , “মমতা নিয়ে কি বলা যায়! মমতা এত দূর চলে গেছে যে পশ্চিমবাংলা আতঙ্কবাদীর ফ্যাক্টরিতে পরিনত হয়েছে। স্বামী বলেন হিন্দুস্থান ইসলামের জন্য একটা গলার কাঁটা হয়ে রয়েছে।

কারণ ইসলাম মনে করে যে আমরা ইরান, যেখানেই গেছি সেখানেই ১৫-২০ বছরের মধ্যে জনসংখ্যা পরিবর্তন করে পুরো ইসলামিকরণ করে দিয়েছি কিন্তু ভারতে ৮০০ বছর রাজত্ব করার পর, ইংরেজরা ২০০ বছর রাজ করার পরেও ৮০% হিন্দু রয়েছে। তাই ইসলাম ভারতকে গলার কাঁটা মনে করে কারণ ভারতকে এখনো ইসলামিকরণ করা সম্ভব হয়নি।স্বামী বলেন হয়ে গেলেও কোনো লাভ হবে না, যদি হিন্দু এখনো না জাগ্রত হয় তাহলে আরো একবার ভারত দু টুকরো হতে পারে।