Press "Enter" to skip to content

পশ্চিমবঙ্গে মমতার সরকার বরখাস্ত করে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হোক দাবি সুব্রামানিয়াম স্বামীর।

আসামে NRC তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী কেন্দ্র সরকারের উপর আক্রমন করতে শুরু করে দিয়েছে। এটা সেই মমতা ব্যানার্জী যিনি ১৩ বছর আগে নিজে বাংলাদেশিদের এই দেশ থেকে বের করার জন্য বলেছিলেন। কিন্তু এখন তিনি ভোটব্যাঙ্কের জন্য অবৈধ বাংলাদেশিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। শুধু তাই নয় অবৈধ বাংলাদেশিদের নিয়ে বেশি কিছু করলে গৃহ যুদ্ধ এবং রক্তগঙ্গা বইয়ে দেওয়ার হুমকি দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। যার পর দেশের মিডিয়া থেকে সাধারণ মানুষ সকলেই মমতার উপর ক্ষোপ প্রকাশ করেন।

বিজেপির রাষ্ট্রীয় সভাপতি অমিত শাহ বলেন, মমতা ব্যানার্জী দেশের নিরাপত্তা নিয়ে খেলা করছে। উস্কানি মূলক মন্তব্যের জন্য মমতার উপর আক্রমণ করেন বিজেপি নেতা ও সাংসদ সুব্রামানিয়াম স্বামী।সুব্রানিয়াম স্বামী বলেন, মমতা ব্যানার্জী পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। পশ্চিমবঙ্গ উনার নিজস্ব সম্পত্তি নয়। কোনো মূখ্যমন্ত্রী অনুপ্রবেশকারীদের দেশে আনতে পারেন না।

স্বামী আরো বলেন,’মমতা ব্যানার্জী সংবিধানের বিরুদ্ধে কথা বলছেন। এছাড়াও ডঃ স্বামী বলেন, “মমতা ব্যানার্জী অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের জন্য দেশের বিরুদ্ধে গৃহ যুদ্ধে করার কথা বলছেন যা কখনোই সহ্য করার নয়।

এক্ষনি পশ্চিমবঙ্গে মমতা ব্যানার্জীর সরকারকে বরখাস্ত করে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা উচিত। এক বিজেপি সাংসদ মমতা ব্যানার্জীর বক্তব্যকে দেশদ্রোহীতা বলে আখ্যা দিয়েছেন। এখন পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা নিয়ে স্বামীর বক্তব্য ঘিরে হৈচৈ শুরু হয়েছে। স্বামী এটাও জানান যে দেশে গৃহযুদ্ধ হবে না কারণ আমাদের প্রশাসন মজবুত আছে। তবে মমতার সরকারকে বাতিল করে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবিও জানান।