Press "Enter" to skip to content

CBI তদন্ত আটকাতে ধর্নায় বসেছিলেন মমতা ব্যানার্জী! তবে এবার CBI যতবার চাইবে ততবার জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে রাজীব কুমারকে।

রবিবার দিন CBI রাজীব কুমারের বাড়ি গ্রেপ্তার করতে নয়, জিজ্ঞাসাবাদ করতে পৌঁছেছিল। কিন্তু মমতা ব্যানার্জী কলকাতা পুলিশকে অপব্যবহার করে অসাংবিধানিকভাবে ব্যাবহার করে CBI এর টিমকে আটক করে। CBI বার বার রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ডেকে পাঠিয়েছিল কিন্তু রাজীব কুমার উপস্থিত হয়নি। এরপর বাধ্য হয়ে CBI জিজ্ঞাসাবাদ করতে কলকাতায় রাজীব কুমারের বাড়ির কাছে পৌঁছায়। যদিও মমতার প্রশাসন CBI কে আটক করে নেয়, কলকাতার CBI দপ্তরে পুলিশ ঘেরাবন্দি করে। কেন্দ্র CRPF নামিয়ে মমতার হাত থেকে CBI কে মুক্ত করে। তবে এখন আদালতে বড় জয় হয়েছে CBI এর, আদালত জানিয়েছে যে রাজীব কুমারকে তদন্তে সহযোগিতা করতে হবে। কলকাতার প্রশাসন কলকাতায় CBI এর উপর চাপ সৃষ্টি করেছিল। এর জন্য আদালত জানিয়েছে যে শিলং এ CBI এর সামনে হাজির হতে হবে রাজীব কুমারকে।

CBI যতবার চাইবে ততবার রাজীব কুমারকে ডেকে তদন্ত করতে পারবে। আদালতের রায়ের পর মমতার ছবি পুরো বদলে গেছে। মমতা ব্যানার্জী এতক্ষণ বলছিলেন যে মোদী CBI কে তাদের উপর ছেড়ে দিচ্ছে। CBI তদন্তকে আটকানোর জন্য যে মমতা এতক্ষণ ধর্নায় বসেছিল সেই মমতা এখন আদালতের রায়কে নিজের জয় বলে দাবি করতে শুরু করেছে।

এবার রাজীব কুমার কোনোভাবেই মমতার আড়ালে লুকিয়ে থাকতে পারবে না। রাজীব কুমারকে শিলং এ CBI এর সামনে হাজির হতেই হবে। ৩ বছর ধরে CBI এর সামনে হাজির হননি বলে অভিযোগ উঠেছে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে। তবে এবার রাজীব কুমার CBI এর সামনে হাজির হতে বাধ্য।

প্রমান লোপাট করার ব্যাপারে CBI, আদালতের সামনে যে তথ্য দিয়েছে তার উপর এখন যাচাই হবে বলে মিডিয়া সূত্রে খবর। CBI এর অভিযোগ প্রমান হলে সমস্যা বাড়বে রাজীব কুমারের। তবে আপাতত তদন্তের ব্যাপারে রাজীব কুমার মেঘালয়ের শিলং এ CBI এর সামনে উপস্থিত হয়ে সাহায্য করতে বাধ্য।

9 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.