Press "Enter" to skip to content

ব্রেকিং খবর: সুপ্রিম কোর্টে হিন্দুদের বড়ো জয়! দীপাবলীতে পটকা/বাজির উপর ব্যান চাওয়া বুদ্ধিজীবীদের মুখে ঝামা ঘষে দিলো আদালত।

ে আরো একবার হিন্দুদের বড়ো জয় হয়েছে, হিন্দুবিরোধীরা কোর্টে পিটিশন জারি করেছিল দীপাবলীতে বাজি বন্ধ করার জন্য। পিটিশন শুনানির জন্য মঞ্জুরি দিয়েছিল। এই ব্যাপারে কোর্ট শেষ রায় জানিয়ে দিয়েছে। কোর্ট জানিয়েছে বাজি বা পটকার উপর ব্যান লাগানো যাবে না। সমাজ এবার দীপাবলির পবিত্র অনুষ্ঠানে জমিয়ে আতশবাজি করতে পারে। বাজি কেনা বেচার উপরেও কোনো লাগাম লাগানো যাবে না। স্মরণ করিয়ে দি, আগের বছর দিল্লিতে আদালত বাজির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। কিন্তু তা সত্ত্বেও মানুষ আতশ বাজি জারি রেখেছিল। উল্লেখ্য বিষয় এই যে হিন্দুরা যেকোনো প্রকারে ভারতে উৎসবের উপর লাগাম লাগাতে চাই।

এই কারণেই আগের বছরের মতো এবছরেও বাজির উপর লাগাম লাগানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু আগের বছরের পর থেকে হিন্দুরা জাত পাতের উপরে উঠে যেভাবে ক্ষোপ প্রকাশ করেছিল তার ফলাফল এই বছর আদালতের সিদ্ধান্তে বোঝা গেল। জানিয়ে দি এই সকলের পেছনে কিছু কট্টরপন্থী খ্রিষ্টান ও তথাকথিত বুদ্ধিজীবীদের হাত যার কিছুদিন আগেও মুম্বাই হাইকোর্টে গিয়ে হিন্দু উৎসবে সরলারের টাকা খরচ বন্ধ করার আর্জি জানিয়েছিল।

সেক্ষেত্রেও অবশ্য কোর্ট বুদ্ধিজীবীকে ধমক দিয়েছিল কারণ হিন্দু উৎসব সামনে এলেই এরা জেগে উঠে সমাজসেবা দেখাতে শুরু করে। উদাহরণ স্বরূপ সারাবছর খ্রিস্টমাস ডে, ৩১ ডিসেম্বর এর বাজি ফাটালে, কলকারখানার ধোঁয়াই এরা পরিবেশে দূষণ দেখতে না পেলেও ঠিক হিন্দুদের কালী পূজা ও দীপাবলি এলেই এদের চোখে দূষণ ফুটে উঠে এবং এর সমাজসেবায় নেমে পড়ে।

তবে কোর্ট এবার সরাসরি হিন্দু বিরোধীদের মুখে ঝামা ঘষে দিয়েছে। কোর্ট দিপাবলীতে বাজির উপর ব্যান লাগানোর উপর অস্বীকার করে দিয়েছে। লাগবে বছর দিল্লীতে বাজির উপর ব্যান লাগানোর কারণে বহু বিক্রেতারা ক্ষতি হয়েছিল কারণ তারা আগে থেকেই দীপাবলি উদ্দেশ্য পতাকা, আতসবাজি কিনে রেখেছিল। তবে এবার আর সেরকম হওয়ার কোনো সুযোগ নেই, কোর্ট হিন্দুদের পক্ষে রায় দিয়ে দারুন পদক্ষেপ নিয়ে নিয়েছে।