Press "Enter" to skip to content

বড় খবর: মমতার সরকারের উপর একশন শুরু আদালতের! সুপ্রিম কোর্টে বড় ধমকি খেল মমতার প্রশাসন।

মমতা কলকাতা পুলিশকে ব্যাবহার করে দেশের সংবিধান নিয়ে ছেলে খেলা শুরু করেছে। গতকাল কলকাতা পুলিশ মমতার নির্দেশ মতো CBI এর কাজে বাধা দেয়। শুধু এই নয়, কলকাতা পুলিশ CBI এর আধিকারিকদের মারধর করে আটক করে। এরপর কেন্দ্র CRPF নামিয়ে মমতার হিটলারী পুলিশকে ঠান্ডা করে। CRPF নাম মাত্র পুলিশ CBI এর আধিকারিকদের ছেড়ে দেয় এবং CBI এর অফিসের সামনে থেকে পলায়ন করে পুলিশ। CBI তদন্তের হাত থেকে চোরদের বাঁচানোর জন্য মমতা ধর্নায় বসে পড়েছে। অন্যদিকে তৃণমুলের উন্নয়নবাহিনী(গুন্ডাবাহিনী) রাজ্যের বিভিন্ন সাথে রেল অবরোধ, ট্রেন অবরোধ করতে নেমে পড়েছে।

তবে এখানেই আটকে নেই, এই মামলার উপর বড় ঝটকা দিয়েছে মমতার সরকারকে। ের প্রধান বিচারপতি বলেছেন যদি রাজীব কুমার কোনো তথ্য লোপাট করার চেষ্টা করে তাহলে এমন ব্যাবস্থা নেওয়া হবে যা উনি সারাজীবন মনে রাখবেন। শুধু এই নয়, পুলিশ কিসের ভিত্তিতে মমতার সাথে ধর্নায় বসেছে তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

প্রধানবিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেছেন যদি কোনো প্রমাণ মুছে ফেলার চেষ্টা হয় তবে রাজীব কুমারকে পরে ভুগতে হবে। CBI আদালতে জানিয়েছে যে অনেক প্রমাণ মুছে ফেলার চেষ্টা করা হবে বলে আশঙ্কা করা যাচ্ছে। এই ভিত্তিতে কাল আদালত শুনানি করবে বলে জানা যাচ্ছে। আজ কলকাতা থেকে দিল্লী যাবেন CBI এর এক আধিকারিক। কলকাতায় যে সমস্ত প্রমান রয়েছে তা নিয়ে দিল্লি রওনা দেবেন CBI আধিকারিক। কাল সুপ্রিম কোর্টের কাছে এই প্রমান জমা দেবে CBI সংস্থা।

অন্যদিকে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হওয়ার দিকেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর কারণ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ের রাজ্যপালের সাথে কথা বলেছেন। রাজ্যের এমন সংবিধান বিরোধী কার্যকলাপের উপর লাগাম লাগানো হবে বলে বড় ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজনাথ সিং। আজ কলকাতার CBI দপ্তরে ঋষি কুমার শুক্লাকেও আনা হতে পারে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

7 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.