Press "Enter" to skip to content

মধ্যপ্রদেশ থেকে বেরিয়ে এলো নতুন সার্ভে! লোকসভা ভোটের আগেই মাথায় হাত রাহুল গান্ধীর।

খবর : ের নতুন সার্ভে

২০১৯ এর সামনে এগিয়ে আসছে কিন্তু তার আগে আরো তিনটি বড়ো নির্বাচনের ঘন্টা বেজে গেছে। ে রাজস্থান, মধ্যেপ্রদেশ ও ছত্রিশগড়ে যে নির্বাচন হবে তা ২০১৯ এর ফলাফল অনেকটা সাফ করে দেবে। দেশের বড়ো দুটি দল বিজেপি ও কংগ্রেস এই নির্বাচনগুলিকে জেতার টার্গেট নিয়ে ফেলেছে। একদিকে হিন্দু সেজে মন্দিরে মন্দিরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন অন্যদিকে বিজেপিও নির্বাচনী প্রচারে প্রধানমন্ত্রী মোদী ও হিন্দুত্ব এর পোস্টার বয় যোগী আদিত্যনাথকে নামানোর সিধান্ত নিয়ে ফেলেছে। এই পরিস্থিতিতে মধ্যপ্রদেশ থেকে বিজেপির জন্য একটা ভালো খবর সামনে আসছে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী অনুমান করা হচ্ছে, মধ্যপ্রদেশে ফের রাজ করতে চলেছেন বিজেপি নেতা । এর আগে যদিও অনেক প্রাক- রাজনৈতিক সামীক্ষায় যদিও বিজেপির শোচনীয় অবস্থার কথা জানা গেলেও নতুন সমীক্ষায় ধরা পড়েছে নতুন প্রাক- রাজনৈতিক সমীক্ষা গুলিতে। টাইমস নাউ এবং সিএনএক্স এর সমীক্ষা থেকে জানা গেছে ,চতুর্থবারের জন্য মধ্যপ্রদেশ এর ক্ষমতায় বসতে চলেছে তবে ভোটের হার হবে মার্জিত।

Narendra Modi – নরেন্দ্র মোদী

প্রাক- রাজনীতির ওই সমীক্ষায় শাসক দল বিজেপিকে দেওয়া হয়েছে ২৩০ টি আসনের মধ্যে ১২২ টি। এর থেকে বোঝা যাচ্ছে যে কংগ্রেস যথেষ্ট উন্নতি করতে চলেছে এইবার ।কংগ্রেসে পেয়েছে ৯৫ টি আসন এবং মায়াবতীর বহুজন সমাজ বহুজন সমাজ পার্টি পেয়েছে ৩ টি আসন।পরবর্তী সমীক্ষায় জানা গেছে যে বিজেপি পাবে মোট ভোটের ৪১.৭৫ শতাংশ এবং বাকি পড়ে থাকা ভোটের ৩৮.৫২ শতাংশ পাবে কংগ্রেস।

শিবরাজ সিং চৌহান

২০১৩ সালের নির্বাচনীতে বিজেপি ১৬৫ টি আসন পেয়ে জয়ী হয়েছিল বাকি ভোটের ৬৫ টি পেয়েছিলো কংগ্রেস ,বাসপা পেয়েছিল ৪ টি আসন এবং অনান্যরা ৩ টি ।অক্টোবর এর প্রথম সপ্তাহে এই সিএনএক্স এর সমীক্ষা বিজেপি কে দিয়েছিল ১২৮ টি আসন।এই সংখ্যাই পরবর্তী সমীক্ষায় কমে হয়ে যায় ১২২ টি এবং কংগ্রেস এর আসন সংখ্যা ৮৫ টি। এই সমীক্ষা একদিকে যেমন বিজেপির মহলে খুশি ছড়িয়েছে তেমনি কংগ্রেস হতাশ হয়েছে।