Press "Enter" to skip to content

রাহুল গান্ধী গলায় জড়িয়ে নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে মেডিক্যাল চেকআপ এর পরামর্শ দেওয়ার কারণ জানলে চমকে যাবেন।

গতকাল সাংসদে অবিশ্বাস প্রস্তাবের নামে কংগ্রেস যেভাবে নাটক করেছিল তা সকলের জানা। আগেই থেকে জানা ছিল যে অনাস্থা ভোটে কখনোই বিজেপির সামনে দাঁড়াতে পারবে না কংগ্রেস। তবে কালকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এখন নতুন নতুন রহস্য বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে যা জানার পর আপনার চোখ কপালে উঠবে। আসলে গতকাল রাহুল গান্ধী তার ভাষণ দেওয়ার পর হঠাৎ করেই নরেন্দ্র মোদীজির কাছে চলে আসেন এবং উনাকে গলায় জড়িয়ে ধরেন। রাহুল এর এই কান্ডে চমকে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

স্পিকার সুমিত্রা মহাজন পর্যন্ত রাহুল গান্ধির ব্যাবহারে রেগে যান কারণ প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে ঐভাবে গলায় জড়িয়ে নেওয়া তা অসভ্য ব্যাপার। আপনাদের জানিয়ে রাখি কাল রাহুল গান্ধীর ওই ব্যাবহার নিয়ে হাসি মজা করলেও বিজেপি সাংসদ ও উকিল সুব্রামানিয়াম স্বামী অন্য সংকেত দিয়েছেন। আসলে স্বামী টুইট করে জানিয়েছেন যে রাহুল গাঁধী যখন গলায় জড়িয়ে ধরছিল তখন প্রধানমন্ত্রীর আটকানো উচিত ছিল। স্বামী বলেন রাশিয়ান ও নর্থ কোরিয়ানরা এমব্রন্স টেকনিক ব্যাবহার করে দেহে বিষাক্ত ছুঁচ ঢুকিয়ে দেয়। স্বামী বলেন নরেন্দ্র মোদীর উচিত যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মেডিক্যাল চেকআপ করানো যায় মাধ্যমে উনি বুঝতে পারবেন যে উনার দেহে সুনন্দার(কংগ্রেস নেতার স্ত্রী যাকে বিষাক্ত ছুঁচ ব্যাবহার করে মারা হয়েছিল) মতো কোনো মাইক্রোস্কোপিক ছিদ্র আছে কিনা। আসলে স্বামী রাহুলকে নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন কারণ উনার ধারণা যে কংগ্রেস ক্ষমতার জন্য যা খুশি করতে পারে।

আপনাদের জানিয়ে রাখি সুব্রামানিয়াম কোনো সাধারণ সংসদ নয় উনি খুবই বিশেষজ্ঞ একজন ব্যক্তি যিনি অনেক বড় বড় কংগ্রেস নেতার পোল খুলে দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, স্বামী সেই বিজেপি সংসদ যিনি রাম সেতুকে ভাঙার হাত থেকে রক্ষা করে হিন্দুদের আবেগ ও ঐতিহ্যকে বাঁচিয়েছিলেন।