Press "Enter" to skip to content

তালিব হোসেন কাঠুয়ার মেয়েটিকে রেপ করে মন্দিরের পাশে ফেলেছিল ? সিরিয়াল রেপিস্ট তালিব হুসেন।Bengali News

ভারতীয় মিডিয়ার হিরো, JNU এর দেশদ্রোহীদের সাথী যে কাঠুয়া কাণ্ডের আড়াল হিন্দু, হিন্দু মন্দিরের বদনাম করিয়েছিল তার আসল ছবি সামনে চলে এসেছে। একজন সিরিয়াল ধর্ষক, যার প্রমান মিডিয়ার কাছে চলে এসেছে। যদিও মিডিয়া বিষয়টিকে সম্পূর্ণভাবে এড়িয়ে যাচ্ছে। ২ মাস জেল খাটার পর জামানত নিয়ে বেরিয়ে এসেছে। নিজের বিবির এক আত্মীয়কে ধর্ষণ করার অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছিল । আপাতত জামানতে রয়েছে । কিন্তু এখন JNU এর ছাত্রী এই ের উপর ধর্ষণের অভিযোগ এনেছে।

তালিব হোসেন JNU এর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে, এই ব্যাক্তি একজন সিরিয়াল রেপিস্ট যে অগণিত ধর্ষন করেছে। এই সিরিয়াল ধর্ষককে দেশের মিডিয়া ও বলিউড হিরো বানিয়ে হিন্দু ও হিন্দু মন্দিরকে বদনাম করিয়েছিল। সিরিয়াল ধর্ষক তালিব হোসেনের উপর এখন গম্ভীর ও বড়ো প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে। ওটা তালিব হোসেন ছিল যে প্রচার করেছিল যে হিন্দু মন্দিরে মুসলিম বাচ্চাকে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছিল এবং পরে হত্যা করা হয়েছিল। সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি ছিল, এই মামলায় সে নির্দোষ হিন্দুদের গেপ্তার করিয়েছিল।

অন্যদিকে দেশের মিডিয়া কাঠুয়া নামে দেশের হিন্দুদের বদনাম রোটানোর কাজ চালিয়েছিল যার নির্দেশক তালিব হোসেন ছিল।
এখন তালিব হোসেন একজন ধর্ষক হিসেবে সামনে এসেছে যে নিজেকে মহিলা হিতৈষী ও সমাজসেবক বলে দাবি করে। এখন কড়া তদন্তের বিষয় এই যে তালিব হোসেন কাঠুয়া আসিফার ধর্ষণ করে মন্দিরের পাশে জঙ্গলে ফেলে দেয়নি তো ? একই সাথে মেহেবুবা, JNU এর দেশদ্রোহী ও মিডিয়ার সাথে মিলে হিন্দু ও মন্দির বিরোধী অভিযান চালিয়েছিল এমন সম্ভাবনা গাঢ় হয়ে প্রকাশ হতে শুরু করেছে।

জানিয়ে দি, হিন্দুবহুল জম্মুকে সম্পুর্নরূপে ইসলামিকরন ও হিন্দুদের তাড়ানোর জন্য কাঠুয়ার পুরো ঘটনা সাজানো হয়েছিল। এই ঘটনায় তালিব হোসেনের সাথ দিয়েছিল মিডিয়া। NDTV এর মত মিডিয়া লাগাতার হিন্দু মন্দির ও হিন্দুদের উপর আক্রমণ চালিয়ে হিন্দুদের বদনাম করিয়েছিল। কিন্তু সেই মিডিয়া এখন তালিব হোসেনের ব্যাপারে নিশ্চুপ রয়েছে।