Press "Enter" to skip to content

ভারতের স্থায়ী নাগরিকাতা পাওয়ার অপেক্ষায় তসলিমা নাসরিন বললেন, ‘আমি এই মাটিরই মেয়ে”

নিজের আবাসিক পারমিট এক বছর বাড়ানোর জন্য প্রসিদ্ধ লেখিকা () সরকার আর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রককে অশেষ ধন্যবাদ জানান। তসলিমা নাসরিন এখন আশা হল, সরকার ওনাকে হয়ত দীর্ঘ মেয়াদি আবাসিক পার্মিট দেবে, নাহলে ের নাগরিকত্ব দেবে। কারণ তিনি এই মাটিরই মেয়ে, আর তাঁর পৌষ্য বিড়ালও ীয়।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এ দেওয়া সাক্ষাৎকারে তসলিমা নাসরিন বলেন, ‘ভারত আমার ঘর। তবে এটা আরও ভালো হত যে, যদি এখানে থাকার জন্য আমাকে প্রতি বছর আর চিন্তা না করতে হত। পাঁচ অথবা ১০ বছরের জন্যও রেসিডেন্স পারমিট দেওয়ার নিয়ম আছে। আমি প্রাক্তন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং-কে অনুরোধ করে বলেছিলাম যে, আমি বাকি জীবন ভারতেই কাটাতে চাই।”

আপনাদের জানিয়ে রাখি, রবিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রালয় তসলিমা নাসরিন এর রেসিডেন্স পারমিটের মেয়াদ এক বছর বাড়িয়ে দেয়। তসলিমা নাসরিন বর্তমানে সুইডেনের নাগরিক, আর তিনি ২০০৪ থেকে লাগাতার ভারতের রেসিডেন্স পারমিট বাড়িয়ে চলেছেন। ৫৬ বছরের লেখিকা তসলিমা নাসরিনকে গত সপ্তাহে তিন মাসের একটি রেসিডেন্স পারমিট দেওয়া হয়েছিল। সেটা উনি টুইটারে শেয়ারও করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে ওই পারমিটের মেয়াদ এক বছর বাড়ানোর অনুরোধ করেছিলেন।

তসলিমা নাসরিন বলেন, ‘আমাকে বিদেশি বলা হয়, কিন্তু আমি এই মাটিরই মেয়ে। আমি আশা করছি যে, ভারত সরকার আমাকে স্থায়ী নাগরিকতা দেবে অথবা দীর্ঘ মেয়াদি রেসিডেন্স পারমিট দেবে। আমি ২৫ বছর নির্বাসনে কাটিয়েছি। এরপরেও আমাকে প্রতি বছরই চিন্তা করতে হয় যে, আমি কোথায় থাকব? এই চিন্তার ফলে আমার লেখাতেও অসুবিধে হয়।”