Press "Enter" to skip to content

ভোটে জিতলে মুসলিম ও খৃষ্টানদের দেওয়া হবে বিশেষ সুবিধা, ঘোষণা কংগ্রেসের।

ভারতবর্ষে এখন বেশিরভাগ হিন্দু কংগ্রেসের মানসিকতা বুঝে গিয়েছে। এর ফলে কংগ্রেস দেশ থেকে প্রায় বিলুপ্তির পথে। নামমাত্র কয়েকটি রাজ্যে এখন কংগ্রেসের অস্তিত্ব টিকে আছে তাও সেগুলি এখন টিমটিম করছে। যেকোনো দিন সেই অস্তিত্ব কংগ্রেসের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেবে বিজেপি। তাই এতদিন মিথ্যা হিন্দু সেজেও কোনো লাভ হল না দেখে এবার দেশের মুসলিম প্রেমী স্বার্থলোভী কংগ্রেস দল চাইছে মুসলিম এবং ক্রিস্টানদের দুই ধর্মের মানুষকে কাছে টানতে। নিজেদের অস্তিত্ব সংকট থেকে বেরিয়ে এসে অস্তিত্ব কিছুটা বাঁচিয়ে রাখার জন্য কংগ্রেস চাইছে তেলেঙ্গানা বিধানসভায় জিততে মরিয়া হয়ে উঠেছে। তাই এই মুহূর্তে কংগ্রেসের মূল টার্গেট কে চন্দ্রশেখর রাও এর দল তেলেঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি কে হারানো। তাই তারা এবার ঘোষণা করেছেন যে মসজিদ এবং চার্চে বিনা পয়সায় বিদ্যুৎ দেবেন। সেই সাথে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন যে, ইমাম ও পাদরীদের মাসিক ভাতা দেবেন।

দেশের এক বড় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন যে, এই মুহূর্তে কংগ্রেস চাইছে যে দেশের সংখ্যালঘু দের কাছে টানতে অর্থাৎ মুসলিমদের হাতের মুঠোয় করবার জন্য বিশেষ চেষ্টা চালাচ্ছেন। এই কারণে কংগ্রেস মুসলিমদের ও খ্রিষ্টানদের নানান সুবিধাজনক প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছে । যার মধ্যে মসজিদ ও চার্চে বিনামূল্যে বিদ্যুৎকরণ ও ইমাম,পাদরিদের মাসিক ভাতা অন্যতম। সমস্থ কিছু সুবিধা হিন্দুদের কাচে থেকে ট্যাক্স নেওয়া টাকায় দেওয়া হবে।

তেলেঙ্গানা রাজ্যের মোট জনসংখ্যার মধ্যে ১২.৫ % রয়েছেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ। এই তেলেঙ্গানা রাজ্যের মোট বিধানসভা সিট হল ১১৯ টি, জানা গিয়েছে এই সিট গুলির মধ্যে ৪২ টি সিটের হার জিত নির্ভর করে সেই রাজ্যের মুসলিম জনস্রোতের উপর।

এছাড়াও মুসলিমদের একেবারে নিজেদের কব্জায় করে নেওয়ার জন্য কংগ্রেস আরোও একটি বিশেষ লোভনীয় প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছে যে, রাজ্যের দ্বিতীয় সরকারি ভাষা হিসাবে উর্দু কে গুরুত্ব দেওয়া হবে যদি সেই রাজ্যে কংগ্রেস জয়ী হয়।
#অগ্নিপুত্র

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.