বড়ো বিপদ থেকে দেশ বাঁচলো !এক ঝটকায় ৫০ লক্ষ মানুষকে মেরে ফেলতো মোহম্মদ সাদিক।

DRI দেশকে আরো একটা ভোপাল কান্ড থেকে বাঁচিয়ে নিলো। মোহম্মদ সাদিক পুরো প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছিল যখন চাইতো ৫০ লক্ষ মানুষকে ১ ঝটকায় মেরে ফেলতে পারতো। মিডিয়া এই ঘটনা নিয়ে সম্পূর্ন নিশ্চুপ রয়েছে, কেউ মুখ খুলতে রাজি নয়। অথচ এই মামলা রাষ্ট্রীয় সুরক্ষার সাথে জড়িত রয়েছে। মোহম্মদ সাদিক নামের ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে যার কাছে কেমিকেল অস্ত্র চলে এসেছিল সেটা আবার এমন যে যখন চাইতো এক ঝটকায় ৫০ লক্ষ মানুষকে মেরে ফেলতে পারতো। এমনকি কিছু জেলায় জীবিত প্রাণীকে হত্যা করে ক্ষমতা চলে এসেছিল যার মধ্যে মানুষ, পশু,পাখি সামিল রয়েছে।

DRI মোহম্মদ সাদিককে ১০ কিলো ফেনটানিল হাইড্রোক্লোরাইডের সাথে গ্রেপ্তার করেছে। এটা খুবই ভয়ানক একটা কেমিকেল যা পরমাণু বোমার সমান ক্ষতি করতে সক্ষম। এই কেমিকেল এতটাই ঘাতক ও ভয়াবহ যা, যেকোনো ব্যাক্তি বা বড়ো থেকে বড়ো প্রাণীকে মাত্র ১ মিলিগ্রাম মাত্রার দ্বারাই মেরে ফেলা সম্ভব। ১০ কিলোগ্রাম ফেনটানিল হাইড্রোক্লোরাইড ৫০ লাখের বেশি মানুষকে শেষ করার জন্য যথেষ্ট। এই কেমিকেলের মূল্যও খুব বেশি হয়।

১০ কিলোগ্রাম ফেনটানিল হাইড্রোক্লোরাইডের জন্য প্রায় ২০০ কোটি টাকা প্রয়োজন। মোহম্মদ সাদিক কোথায় থেকে এই কেমিকেল সংগ্রহ করেছিল এবং তার উদ্দেশ্য কি ছিল এই ব্যাপারে তদন্ত চলছে। মোহম্মদ সাদিক একজন খুব শিক্ষিত ব্যাক্তি যে কেমিস্ট্রিতে PHD কমপ্লিট করেছে। মধ্যেপ্রদেশে যখন কংগ্রেসের সরকার ছিল তখন প্রত্যেক জেলায় সিমির সেন্টার খোলা হয়েছি। সামনে নির্বাচন রয়েছে তাই হতে পারে যে মোহম্মদ সাদিক কেমিকেল হাতিয়ার প্রস্তুত রেখেছিল যাতে বড়ো সংখ্যায় মানুষ হত্যা করা যায় এবং সরকারের টিকে থাকা অসম্ভব হয়ে যায়।

আশঙ্কা করা হচ্ছে সরকারকে উপড়ে ফেলার জন্য মোহম্মদ সাদিক এমন কাজ করেছিল। যদিও পুলিশ এখন সমস্থ দিক থেকে তদন্ত,জিজ্ঞাসাবাদ করতে শুরু করে দিয়েছে। তবে এটা স্পষ্ট যে মোহম্মদ সাদিক কোনো ভালো কাজের জন্য নয় বরং কোনো বড়ো ক্ষতি করার পরিকল্পনা করেছিল। জানিয়ে দি মিডিয়া এই বিষয়ে কোনো খবর প্রকাশ করছে , আর করলেও লোকটির নাম প্রকাশ করছে না, কারণ গ্রেপ্তার হওয়া ব্যাক্তির নামের সাথে মিডিয়ার এলার্জি রয়েছে।

you're currently offline

Open

Close