Press "Enter" to skip to content

যুদ্ধ হলে পাকিস্থানের হয়ে ভারতের বিরুদ্ধে লড়াই করবে এই ৫ টি দেশ! কিন্তু সবার বাপ থাকবে ভারতের পাশে।

পুলবামা হামলার পর ভারত পাকিস্থানের আতঙ্কবাদী ক্যাম্পে এয়ার স্ট্রাইক করেছিল। আর সেই ইস্যুতে এখনো ভারত-পাক পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে। স্থিতি যুদ্ধের না হলেও পাকিস্থানের জিহাদি নীতি বার বার ভারতকে যুদ্ধের জন্য উস্কানি দেওয়ার কাজ করছে। পাকিস্থান বার বার সিজ ফাইয়ারিং উলঙ্ঘন করে সীমা থেকে ভারতের সেনার উপর আক্রমন করার চেষ্টা করছে। তাই প্রশ্ন উঠেছে যে, যদি ভারত ও পাকিস্থানের মধ্যে যুদ্ধ সম্পন্ন হয় তবে কোনো কোন দেশ ভারতের সাথে থাকবে আর কোনো কোন দেশ পাকিস্থানের সমর্থন করবে।

পাকিস্থানের সমর্থনে থাকবে এই দেশগুলি-

চীন- যদি যুদ্ধ শুরু হয় তাহলে চীন পাকিস্থানের সাহায্য করবে এটা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কারণ সম্প্রতি চীন পাকিস্থান ৪৬ বিলিয়ন ডলারের বেশি বিনিয়োগ করেছে। এমনিতে চীন জানিয়েছে যে তারাও আতঙ্কবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করবে। কিন্তু আন্তর্জাতিক মঞ্চে চীন বার বার পাকিস্থানের আতঙ্কবাদীদের উপর ব্যান লাগাতে বাধা দেয়

তুর্কী- পাকিস্থান ও তুর্কীর মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে। তুর্কি পাকিস্থানের মতোই ইসলামিক দেশ এবং কট্টরপন্থী চরমে থাকা দেশ। সম্প্রতি পাকিস্থানের সাথে তুর্কীর রাষ্ট্রপতি রাজাব তাইয়েব এরদৌনের যে বৈঠক হয়েছিল সেখানেও ভারত-পাক বিবাদের চর্চা হয়েছিল।

মিশর: আরব গণরাজ্য মিশর ও পাকিস্থানের মধ্যে সম্পর্ক বহুদিনের। জিহাদি মহম্মদ আলী জিন্না যখন থেকে ভারত ভেঙে পাকিস্থানের স্থাপনা করেছিল তখন থেকে এই সম্পর্ক। তাই ভারত-পাকিস্থানের যুদ্ধ হলে আরব গণরাজ্য মিশর পাকিস্থানের সাহায্য করবে।

সৌদি আরব: পাকিস্থান ও সৌদি আরবের সম্পর্ক কারোর থেকে লুকিয়ে নেই। এখন আন্তর্জাতিক চাপ ও ব্যাবসার খাতিরে আতঙ্কবাদের বিরুদ্ধে বললেও সৌদি আরব পাকিস্থানের সমর্থক হয়েই থাকবে। ভীষণ যুদ্ধ শুরু হলে সৌদি আরব খোলাখুলি পাকিস্থানের সাহায্য করবে।

এছাড়াও কিছু দেশ- বাহরাইন, কুয়েত, ওমান, সংযুক্ত আরব আমিরাত যুদ্ধের ক্ষেত্রে পাকিস্তানকে সমর্থন করবে।

ভারতের সমর্থনে থাকবে এই দেশগুলি-

ইজরায়েল: ভারতের পাশে কেউ থাকুক আর না থাকুক, ইজরায়েল সর্বদা ভারতের পাশে থাকবে। ইজরায়েল ভারতের শুধু মিত্র দেশ নয়, ইজরায়েল ভারতের ছোট ভাইয়ের মতো। এমনকি ভারত স্বাধীনতার পর থেকে যে যুদ্ধগুলি করেছে সেক্ষেত্রেও ইজরায়েল ভারতের সাহায্য করেছিল। কার্গিল যুদ্ধে ইজরায়েল ভারতকে লেজার গাইডেড মিসাইল দিয়ে সাহায্য না করলে, ভারতকে আরো বেশী সেনা জওয়ানদের বলিদান দিতে হতো। সম্প্রতি, ভারত পাকিস্থানের উপর যে এয়ার স্ট্রাইক করেছিল সেখানেও ইজরায়েলি বোমার ব্যাবহার করা হয়েছিল। জানিয়ে দি, ইজরায়েল একটা লড়াকু দেশ যা একসাথে  ৮ টি দেশকে যুদ্ধে হারিয়ে বিশ্ব রেকর্ড করেছে।

রাশিয়া: ইতিহাস সাক্ষী রয়েছে যে ভারতের বিপদের সময় রুশ পাশে দাঁড়িয়েছিল। ১৯৭১ এর যুদ্ধের সময় আমেরিকা, চীন সহ বাকি কিছু দেশ পাকিস্থানের সমর্থনে ভারতে আক্রমন করার জন্য নৌসেনা নামিয়ে দিয়েছিল। সেই সময় ভারত চাপে পড়ে গেছিল। আমেরিকা ও চীন ভারতীয় ক্ষেত্রের দিকে এগিয়ে আসছিল সেই মুহুর্তেই রাশিয়া পারমাণবিক যুদ্ধজাহাজ আমেরিকার আগে দাঁড় করিয়ে দেয়। বাকি দেশগুলিকে সাবধান করে ঘোষণা করে যে যদি কেউ ভারতের দিকে চোখ তুলে তাহলে আগে রুশের সাথে লড়াই করতে হবে। রুশ সেই সময় ভারতের যেভাবে সাহায্য করেছিল তা প্রমান করে যে যুদ্ধস্থিতিতে অবশ্যই রাশিয়া ভারতের সাহায্য করবে।

জাপান: যুদ্ধস্থিতিতে ভারতের সমর্থনে আরো একটা দেশ মনখুলে দাঁড়াবে সেটা হলো জাপান। আসলে জাপান ও চীনের সম্পর্ক ভালো নেই। অন্যদিকে জাপান বরাবর ভারতের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রেখেছে।

ফ্রান্স: ভারত-পাক যুদ্ধকালীন সময়ে ফ্রান্স ভারতের সমর্থনে আসতে পারে। এর কারণ এই দুই দেশের মধ্যে অনেকে পুরানো সম্পর্ক রয়েছে এবং যুদ্ধকালীন সময়ে সাহায্য করার উপর দুই দেশের মধ্যে চুক্তিও রয়েছে।

অস্ট্রেলিয়া: পুলবামা হামলার পর অস্ট্রেলিয়া খোলাখুলিভাবে পাকিস্থানের সমালোচনা করেছিল এবং আতঙ্কবাদীদের ব্যান করার জন্য মন্তব্য প্রকাশ করেছিল।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.