Press "Enter" to skip to content

পাকিস্তান থেকে আসা হিন্দুদের জন্য বিশেষ যোজনা মোদী সরকারের! দেওয়া হবে ৫ লক্ষ টাকা সাথে বহু সুবিধা।

১৯৪৭ এর পর থেকে এমন কোনো সরকার আসেনি যারা সমাজের জন্য এতটা করেছে যতটা সরকার করেছে। ভারতের বিভাজন ধর্মের ভিত্তিতেও হয়েছিল, মুসলিমদের নতুন দেশের দাবি মেনে ভারত ভাগ করা হয়েছিল। পাকিস্থান তৈরি হওয়ার পর অনেক হিন্দু পাকিস্থান থেকে ভারত এসেছিল। কিছু হিন্দুর শবদেহ এসেছিল তো কিছু হিন্দু জীবিত অবস্থায় পালিয়ে বেঁচে এসেছিল। পাকিস্থান থেকে আগত হিন্দুরা দেশের আলাদা আলাদা স্থানে বসে গেছিলো। জম্মুতেও ওপার থেকে অনেক হিন্দু এসে ঠাঁই নিয়েছিলা। দেশের অন্যান্য অংশে বসে যাওয়া পাকিস্থান থেকে আসা হিন্দুরা সেই সময় নাগরিকত্ব পেয়েছিল কিন্তু জম্মুতে ঠাঁই নেওয়া হিন্দুরা আজও নাগরিকত্ব পাইনি। পাকিস্থান থেকে আসা যে সমস্ত হিন্দুরা এসে জম্মুকাশ্মীরে বসেছিল তারা আজও শরণার্থী হয়েই রয়েছে। এখনো এই হিন্দুরা পূর্ন নাগরিকত্ব পাইনি আর নাগরিকত্ব না পেলে বাকি সুযোগ সুবিধার কোনো নেই।

জম্মু কাশ্মীরে এমন হাজার হাজার হিন্দু শরণার্থী হয়ে রয়েছে যাদের জন্য ৭০ বছর ধরে কিছু করা হয়নি। কিন্তু এবার বড়ো ঘোষণা করে দিয়েছেন। ২০১৪ তে ক্ষমতায় আসার পর এই হিন্দুদের মধ্যে আশা জেগেছিল যে এবার তারা ন্যায় পাবে। কেন্দ্র সরকার জম্মুতে থাকা এই সমস্থ হিন্দুদের জন্য একটা যোজনার মঞ্জুরি দিয়ে দিয়েছে যার মাধ্যমে এই সকল পরিবারকে ৫ লক্ষ করে টাকা দেওয়া হবে একই সাথে পূর্ন নাগরিকত্ব দেওয়ানোর জন্য সমস্থ রকমের বন্দোবস্ত করা হচ্ছে। এই নির্ণয় রাজ্যপাল সত্যপাল মালিকের সভাপতিত্বে রাজ্য উপদেষ্টা পরিষদের সভায় নেওয়া হয়েছে।

এক আধিকারিক প্রবক্তা জানিয়েছেন কেন্দ্র সরকার এই যোজনায় সমস্থ খরচ বহন করবে। জম্মুর মন্ডল আয়যুক্তকে এই যোজনা লাগু করার জন্য বলা হয়েছে। যে হিন্দুরা ৭০ বছর ধরে নিজের দেশে শরণার্থী হয়ে ছিল এখন মোদী সরকার তাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য সিধান্ত নিয়েছে। জানিয়ে ডি দেশে বেশিরভাগ সময় কংগ্রেস রাজ করেছে যা মুসলিমদের খুশি করার জন্য যেকোনো পর্যায় পর্যন্ত যেতে রাজি ছিল।

এই কারণে দেশে অবৈধ বাংলাদেশিদের ঢুকিয়ে তাদের নাগরিকত্ব দেওয়া হোক বা রহিঙ্গাদের নাগরিকত্বতার জন্য আদালতের দারস্ট হওয়া হোক- এসব কিছু করলেও হিন্দু শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা চিন্তা করেনি কংগ্রেস।তবে মোদী সরকার সম্পুর্ন উল্টোরূপে কংগ্রেসের চালু করা হজ সাবসিডি বাতিল করে সেই টাকা সমাজের অন্য ভালো কাজে নিবেশ করছেন।