Press "Enter" to skip to content

হিন্দু ধর্মের বদনাম করার জন্য জালি ছবি ব্যাবহার করলো টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

দেশে হিন্দুবিরোধী সংবাদ মাধ্যম ও মিডিয়ার সংখ্যার তালিকা বেশ লম্বা। আর হিন্দুদের সহিষ্ণুতার সুযোগ নিয়ে এরা তাদের বিচারধারা মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে। সবথেকে বড় ব্যাপার এই যে হিন্দুদের অসচেতনতার কারণে এরা দিন দিন শক্তিশালী ও সাহসী হয়েই যাচ্ছে। সম্প্রতি এমনি একটা ঘটনা সামনে এসেছে যা জানার পর আপনিও চমকে যাবেন। আসলে ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’ নামক একটা অনলাইন নিউজ পোর্টাল একটা খবর পোস্ট করছে। খবরটির হেডলাইন এই যে মহারাষ্ট্রের একজন গডম্যান ধর্ষনে অভিযুক্ত হয়েছে। খবিরটিতে একটা ছবি ব্যবহার করা হয়েছে একজন ঋষি বা সাধুর।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে একজন হিন্দু মহাত্মা(ঋষি) যার লম্বা চুল,মাথায় লাল তিলক, গলায় রুদ্রাক্ষের মালা এবং যে হাত দিয়ে আশীর্বাদ করতে যাচ্ছেন সেই হাতে রয়েছে হাতকড়ি। অর্থাৎ ছবি ও হেডলাইন দেখলে যেকোনো ব্যাক্তি ভাববেন যে কোনো হিন্দুধর্মের সাধু ধর্ষণে অভিযুক্ত হয়েছে। কিন্তু যদি ঐ খবর আপনি খুলে পড়েন তাহলে জানতে পারবেন যে ধর্ষণে অভিযুক্ত ওই গডম্যান এর নাম আসিফ নুরি। নাম দেখেই বুঝতে পারছেন যে আসিফ নুরি হিন্দু ধর্মাবলির ব্যাক্তি নয় অথচ টাইমস অফ ইন্ডিয়া ছবি ও হেডলাইন এমনভাবে ব্যাবহার করেছে যাতে মানুষের মনে হিন্দু ধর্মের প্রতি বিদ্বেষ জন্ম নেয়।

আপনাদের জানিয়ে রাখি ১০ দিন আগেও এই সংবাদ মাধ্যম এইরকম হিন্দুবিদ্বেষী খবর ছেপে ছিল। সংবাদের হেডলাইন এ ছিল যে ১১ বছরের এক বাচ্চাকে পাচারের হাত থেকে রক্ষা করা হয়েছে মাদ্রসা ও বেদপাঠশালা থেকে। আপনাদের জানিয়ে রাখি হেডলাইনে বেদ পাঠশালার নাম থাকলেও বেদপাঠশালা এইসকলের সাথে জড়িত ছিল না। সমস্ত কিছুই ছিল মাদ্রাসা সংক্রান্ত। যদিও সেই সময় বিভোর আনন্দ নামে একজন ব্যক্তি টাইমস ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করিয়েছিল। দেখুন ভিডিও-