Press "Enter" to skip to content

পশ্চিম বাংলার নৈহাটির এক তৃণমূল কাউন্সিলার এর ওপর পড়ল গণপ্রহার ! তোলা তুলতে গিয়েছিলো আর তারপর ..

সোমবার লালবাবা রোড এলাকায় অর্থাৎ যেটি এলাকায় অবস্থিত, সেখানে একটি ঘটনা ঘটে যায়। জানা গিয়েছে যে, গনেশ দাস নামে নৈহাটির ৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সেখানে তোলাবাজি করছিল। সেই সময় সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে গনপ্রহার দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন। পুলিশ সেই সময় তাকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেপ্তার করেন।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ যে, কাউন্সিলর গণেশ দাস সেখানে গিয়েছিল সেখানকার এক স্থানীয় ব্যবসায়ী মনোজ দাসের কাছে ৫ লক্ষ টাকা তোলা তুলবার জন্য। সেই সময় গনেশ দাস তার সাথে করে নিয়ে গিয়েছিল ৪ দুষ্কৃতী কে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন যে, সোমবার রাতে মনোজ বাবুর বাড়িতে হঠাৎ করে কয়েকজন দুষ্কৃতী কে সাথে নিয়ে চড়াও হন কাউন্সিলর গনেশ দাস। এবং তিনি মনোজ বাবুর কাছে ৫ লক্ষ টাকা তোলা দাবি করেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা আরও জানিয়েছেন যে, আমরা মনোজ বাবুর বাড়ি থেকে উনার চিৎকার শুনে ছুটে যায় এবং সেখানে গিয়ে দেখি যে, গনেশ দাসের ভাড়া করা গুন্ডারা ব্যবসায়ী মনোজ দাস কে মারার চেষ্টা করছিল। এর কারণ কাউন্সিলরের দাবি করা ৫ লক্ষ টাকা দিতে অস্বীকার করেন মনোজ দাস। সেই জন্যই ভাড়া করা গুন্ডা দিয়ে তাকে মারার চেষ্টা করা হচ্ছিল।

এবং সেই সময় গনেশ দাস সহ তার ভাড়া করা গুন্ডাদের হাতেনাতে ধরে ফেলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এবং তাদের উপর চড়াও হন তারা, তাদের কে বেশ কিছুক্ষণ গনপ্রহার দেন বলেও জানা গিয়েছে। শেষে খবর পেয়ে নৈহাটি থানার বিশাল পুলিশবাহিনী সেই স্থানে গিয়ে হাজির হয়। উত্তেজিত জনতা কে ঠান্ডা করেন এবং কাউন্সিলর সহ চারজন দুষ্কৃতী কে ধরে থানায় নিয়ে যায়। জানা গিয়েছে যে, এই বিধায়কের আরও একটি পরিচয় রয়েছে সেটা হল ইনি অর্জুন সিং এর খুব ঘনিষ্ঠ। আর এই অর্জুন সিং হলেন ভাটপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক।
#অগ্নিপুত্র

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.