Press "Enter" to skip to content

বিজেপি জুজু? শিলিগুড়িতে একই মিছিলে সিপিএম-কংগ্রেস-তৃণমূল

দিন কয়েক আগেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেসের সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জী বিধানসভায় দাঁড়িয়ে বাম এবং কংগ্রেসকে তৃণমূলের সাথে মিলে বিজেপির বিরুদ্ধে একসাথে লড়াই করার আহ্বান জানিয়েছিলেন। লোকসভা ভোটের পর এরাজ্যে বিজেপির অভূতপূর্ব উত্থানের পর মমতা ব্যানার্জী আর একা বিজেপির সাথে লড়াই করার সাহস দেখাচ্ছেন না।

মমতা ব্যানার্জীর সেদিন সবাইকে একসাথে লড়াইয়ের আহ্বানের পর, আজ শিলিগুড়িতে তৃণমূল- কংগ্রেস -আর সিপিএমকে একসাথে একই মিছিলে হাঁটতে দেখা গেলো। যদিও ওনাদের মতে এই মিছিল সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক ছিল। এই মিছিলের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল পরিবেশ রক্ষা, গাছ লাগানো এবং প্লাস্টিকের বয়কট। তবে প্রশ্ন একটাই মিছিল সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক হলে সেই মিছিলে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপি নেই কেন? তবে এই অরাজনৈতিক মিছিলে শিলিগুড়ির মেয়র তথা বাম নেতা অশোক ভট্টাচার্য, তৃণমূলের মন্ত্রী গৌতম দেব ও কংগ্রেসের শঙ্কর মালাকার কে একসাথে বেশ গল্পে মজে উঠতেও দেখা গেলো।

শিলিগুড়ির পুরসভা দখল নিয়ে তৃণমূলের মন্ত্রী গৌতম দেব এবং সিপিএম এর মেয়র অশোক ভট্টাচার্য এর দ্বন্দ্ব কারোর অজানা নেই। আর এবার সব দ্বন্দ্ব ভুলিয়ে এবার একসাথে তিন নেতা। গত পুরসভা ভোটে কংগ্রেস আর সিপিএম মিলে শিলিগুড়িতে তৃণমূলের উন্নয়ন বাহিনীর ছাপ্পা বাজি রুখেছিল। আবার গত বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস আর সিপিএম জোট বেঁধে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছিল।

সেসব এখন অতীত। লোকসভা ভোটের পর এরাজ্যে সিপিএম নিশ্চিহ্ন। কংগ্রেস কোনরকম ভাবে একটি আসব ধরে রাখতে পেরেছে। আর বিজেপির উত্থান যে শুধু শাসকদল তৃণমূলকে ভাবাচ্ছে না, সেটা বলাই বাহুল্য। তাই রাজ্যের বিধানসভা ভোটের আগে কংগ্রেস- সিপিএম আর তৃণমূল মিলে নিজেদের ঘুঁটি সাজাতে মাঠে নেমে পড়েছে।