Press "Enter" to skip to content

আহারে গণতন্ত্র! কাঁথির ঘটনার পুনরাবৃত্তি, আবারও বিজেপি কর্মীদের বাসে হামলা, অভিযুক্ত তৃণমূল

সত্যিই কি অবাক গণতন্ত্র! একদিকে তৃণমূল নেত্রী জোরে জোরে চেঁচিয়ে বলেছেন দেশে গণতন্ত্র বিপন্ন করেছে বিজেপি। আরেকদিকে সেই গণতন্ত্রের গলায় গামছা পেঁচিয়ে নিজেয় হত্যা করছেন। বিজেপি শাসিত রাজ্যে কোন বিরোধী দল জনসভা করতে চাইলে প্রশাসন কোনোরকম ভাবে আটকানোর চেষ্টা করেনে। এমনকি বিজেপি কর্মীরাও ওই সভা থেকে হাজার হাজার হাত দূরে থাকে।

এরজন্যই আকবর উদ্দিন ওয়েসির মত কট্টরপন্থী মানুষগুলোও বিজেপি শাসিত রাজ্যে গিয়ে সভা করে চলে আসছে। কেউ সভাও আটকাচ্ছে না, আর কেউ তাঁদের কর্মীদের উপরে হামলাও করছে না। কিন্তু এরাজ্যে বিজেপি সভা করতে চাইলেই প্রথমেই প্রশাসন দিয়ে সভা আটকানোর চেষ্টা করছে সরকার।

আর তারপর সভা মাঠে নানারকম ছুতো দেখিয়ে মাঠ আগে থেকেই বুকিং আছে বলে জানাচ্ছে তৃণমূল। এসব হয়ে গেলে তারপর সভা স্থলে হেলিকপ্টার নামতে দিচ্ছেনা প্রশাসন। আর কোনরকমে সবকিছু ঠিকঠাক করে যদি সভা করার অনুমতি হাসিল করে নেওয়া যায়। তখন গুন্ডা লাগিয়ে আগে পাড়ায় পাড়ায় হুমকি দেওয়া হচ্ছে সভায় না যাওয়ার জন্য।

আর সেসব হয়ে গেলে, সভার দিন বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা। সত্যিই কি আমরা গণতান্ত্রিক রাজ্যে বাস করছি? কদিন আগে মেদিনীপুরের কাঁথিতে সভা শেষে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা করে প্রায় পঞ্চাশের উপরে যান বাহনে ভাঙচুর চালাল তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা।

তারপর বিজেপি কর্মীদের উপর মারধর করে তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করল দিদির সেই উন্নয়ন বাহিনী। কেন্দ্র বিজেপি নেতৃত্ব এই ঘটনার চরম নিন্দা করে তৃনমূলকে হুঁশিয়ারি দিয়েও কোন লাভ হয়নি। এবার বনগাঁর ঠাকুরনগরে প্রধানমন্ত্রীর সভা শেষে বাড়ি ফেরা বিজেপি কর্মীদের উপর অতর্কিত হামলা চালাল শাসক দলের মদত পুষ্ট দুষ্কৃতীরা।

পাওয়া তথ্য অনুযায়ী নদীয়ার চাকদহ থেকে একদল বিজেপি কর্মী প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগ দিতে ঠাকুরনগর জান। সভা শেষে ফেরার পথে চাকদহ বিডিও অফিসের সামনে একদল দুষ্কৃতী তাঁদের পথ রোধ করে দাঁড়ায়। বিজেপি কর্মীরা কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাঁদের গাড়িতে হামলা করে ওই দুষ্কৃতীর দল।

গাড়িতে চালানো হয় ভাঙচুর, বিজেপি কর্মীদের গাড়ি থেকে নামিয়ে করা হয় মারধর। এমনকি গাড়ির চাবি পর্যন্ত ছিনিয়ে নেয় ওই দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় গোটা এলাকায়। পেয়ে পুলিশ বাহিনী এসে ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার পর এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী।

8 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published.