Press "Enter" to skip to content

ফের বড়সড় ঝটকা খেলেন মমতা ব্যানার্জী! এক বিধায়ক ও একটি পুরসভা হাতছাড়া হল তৃণমূলের

লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির জয়ের পর পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক এবং নেতাদের দল বদলের হিড়িক পড়ে গেছে। রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন মাথার উপরে, আর এরই মধ্যে বিধায়কদের দল ত্যাগ মমতা ব্যানার্জীর নেতৃত্বে থাকা তৃণমূল কংগ্রেসের চিন্তা চরম বাড়িয়ে চলেছে। সোমবার নোয়াপাড়ার তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক সুনীল সিং সহ দলের ১২ জন কাউন্সিলর বিজেপিতে যোগ দেন।

তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া সবাইকে পার্টির সদস্যতা দেন পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং বিজেপির নেতা মুকুল রায়। কিছুদিন আগে দার্জিলিং পুরসভার ৩০ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ১৭ জন বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। এর ফলে লোকসভা নির্বাচনের পর এরাজ্যের পুরসভা যেটা বিগত এক দশকের উপরে তৃণমূলের দখলে ছিল, সেখানে এখন বিজেপি শাসন চালাবে।

আপনাদের জানিয়ে রাখি, কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেছিলেন যে, যেমন ভাবে পশ্চিমবঙ্গে সাত দফায় নির্বাচন হয়েছে, ঠিক তেমন ভাবেই সাত দফায় তৃণমূলের সবাই দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন। এর আগে নরেন্দ্র মোদী নির্বাচনি প্রচারে দিয়ে বলেছিলেন, তৃণমূলের ৪০ বিধায়ক আমাদের সাথে যোগাযোগ করছে, তাঁরা খুব শীঘ্রই বিজেপিতে যোগ দেবেন। বিজয়বর্গীয় এর অনুসারে, এরা সবাই মমতা ব্যানার্জীর অপশাসনে তিতিবিরক্ত হয়ে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, রাজ্যের বেশ কয়েকজন বিধায়ক সমেত প্রায় ১০০ জন কাউন্সিলর বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এদের মধ্যে মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায় ও আছেন। শুভ্রাংশু বিজপুর থেকে বিধায়ক। এছাড়াও বিশ্নুপুর থেকে তৃণমূল বিধায়ক এবং হেমাতাবাদ এর সিপিএম বিধায়ক বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন।