Press "Enter" to skip to content

কোচবিহারে পঞ্চায়েত সমিতিও তৃণমূলের হাত থেকে ছিনিয়ে নিলো বিজেপি

সোমবার তুফানগঞ্জ ২ নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সহ ৭ সদস্য বিজেপিতে যোগ দেন। এর আগে ওই পঞ্চায়েত সমিতির ১০ সদস্য বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন। আজকের যোগদানের পর ২৯ আসন বিশিষ্ট এই পঞ্চায়েত সমিতিতে সংখ্যালঘু হয়ে পড়ল শাসক দল তৃণমূল। বিজেপির এই পঞ্চায়েত সমিতি দখল শুধু সময়ের অপেক্ষা।

লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির জয়ের পর পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক এবং নেতাদের দল বদলের হিড়িক পড়ে গেছে। রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন মাথার উপরে, আর এরই মধ্যে বিধায়কদের দল ত্যাগ মমতা ব্যানার্জীর নেতৃত্বে থাকা তৃণমূল কংগ্রেসের চিন্তা চরম বাড়িয়ে চলেছে। সোমবার নোয়াপাড়ার তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক সুনীল সিং সহ দলের ১২ জন কাউন্সিলর বিজেপিতে যোগ দেন।

এছাড়াও পালাবদলের খেলায় কোচবিহারের ১২৮ টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে ইতিমধ্যে ৩০ টি পঞ্চায়েত হাতছাড়া হয়েছে তৃণমূলের। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিরোধী দলকে মনোনয়ন জমা না করতে দেওয়ায় রাজ্যে একছত্র ভাবে ৯০ শতাংশ পঞ্চায়েত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দখল করে তৃণমূল। কোচবিহারের শুধুমাত্র ঘোকসাডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েত দখল করতে সক্ষম হয়েছিল গেরুয়া শিবির। কিন্তু লোকসভা ভোটের ফলাফল বেরোতেই দল বদলের পালা শুরু হয়ে যায়। আর এর ফলে চরম চাপে পড়তে হয় তৃণমূল নেতৃত্বকে।

সোমবার তুফানগঞ্জের রায়ডাক ভবনে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কল্পনা সিং সহ ৭ জন সদস্য বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নেন। তাঁদের পার্টির সদস্যতা দেন কোচবিহার জেলা সাধারন সম্পাদক সঞ্জয় চক্রবর্তী। এর আগেও এই পঞ্চায়েত সমিতির ১০ জন বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন।