Press "Enter" to skip to content

সামনে এলো ভিডিও: বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা ব্যাক্তি হলুদ পোশাকে TMC পার্টির সদস্য ?

বিদ্যাসাগরের মুর্তি ভাঙা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। মূর্তি ভাঙা নিয়ে তৃণমূল ( All India Trinamool Congress ) ও বিজেপি ( Bharatiya Janata Party) পার্টির মধ্যে আক্রমন পাল্টা আক্রমণ শুরু হয়েছে। তৃণমূল সরাসরি মূর্তি ভাঙার দায় বিজেপির উপর চাপিয়ে দিচ্ছে তো অন্যদিকে বিজেপি CCTV ক্যামেরার ফুটেজ দেখানোর দাবি তুলেছে। কিছু সংবাদ মাধ্যম প্রমান ছাড়াই সরাসরি গেরুয়াধারীদের তান্ডব বলে নিজেরদের প্রোপাগান্ডা চালাচ্ছে। অন্যদিকে কিছুজনের দাবি এটা বাঙালি আবেগকে আঘাত করে বাঙালি-অবাঙালি বিভেদ সৃষ্টি করার চেষ্টা চলছে যাতে বিজেপির ভোট কাটা যায়।

অনেকে বলেছেন মূর্তি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভেতরে ছিল তাহলে BJP এর কর্মীরা কিভাবে সেখানে ঢুকতে পারলো? প্রশ্ন এটাও যে প্রশাসন কেন সক্রিয় ছিল না, মহাপুরুষ এর মূর্তি ভেঙে  BJP কর্মীদের লাভই বা কি? পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী বলেছেন, বিজেপি বাইরের গুন্ডা এনে বাঙালি সংস্কৃতির প্রতীক বিদ্যাসাগরের মূর্তিকে ভেঙে দিয়েছে। তবে এখন একটা ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে শুরু হয়েছে। ভিডিও নিচে দেওয়া হলো।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে হলুদ রঙের পোশাকে এক ব্যাক্তি মূর্তি ভাঙছে। ব্যাক্তির মুখে বেশ দাড়িও রয়েছে। এরপর আরো একটা ভিডিওতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর সাথে হলুদ রঙের পোশাকে ব্যক্তিকে দেখা যাচ্ছে। বিজেপি সমর্থকদের দাবি যে মূর্তি ভাঙা ব্যাক্তি ও মমতা ব্যানার্জীর পাশে থাকা ব্যাক্তি একই। ভিডিওতে দেখেও সেটা একই মনে হচ্ছে যদিও বিশেষজ্ঞদের দ্বারা যাচাই না হলে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয়।

বিজেপি সমর্থকদের দাবি, TMC গুন্ডারাই একাজ করেছে। হলুদ পোশাক পরে তৃণমূল কংগ্রেসের গুন্ডাব্রিগেডের এক সদস্য বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে। প্রসঙ্গত জানিয়ে দি, পশ্চিমবঙ্গে মহাপুরুষদের মূর্তি ভাঙার কাজ এই প্রথমবার নয়। এর আগেও বেশ কয়েকবার মূর্তি ভাঙার ঘটনা পশ্চিমবঙ্গ থেকে সামনে এসেছে। কিন্তু সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী এতটা তীব্র সমালোচনা বা প্রতিবাদ জানায়নি।