Press "Enter" to skip to content

একুশে অক্টোবর, বিশেষ দিনেই বাংলায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন একাধিক কর্মী ! Bengali News

সামনের বছর দেশে লোকসভা ভোট। এটা একপ্রকার যুদ্ধ বলা যেতে পারে আবার অনেকের মতে এই ভোট হল উৎসব। তাই লোকসভা ভোট কে নজরে রেখে দেশের সমস্ত দল তাদের নিজের নিজের সংগঠন মজবুত করে চলেছে। কেউ কাউকে জমি ছাড়তে রাজি নন। সুযোগ পেলেই একে অপরের দূর্গে থাবা বসাচ্ছেন। রাজনীতিতে ভাঙা গড়ার খেলা চলছে ক্রমাগত। সেই খেলায় বেশ এগিয়ে রয়েছেন দেশের একমাত্র দেশপ্রেমী দল “ভারতীয় জনতা পার্টি।” তারা বিরোধী রাজ্য গুলিকে টার্গেট করে একের পর এক তাদের দলে ভাঙন ধরাচ্ছেন।

আরো পড়ুন – বিদেশ যাত্রায় ৩৫৫ কোটি ব্যায় করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশের জন্য যা এনেছেন জানলে গর্বিত হবেন।

দেশের প্রায় অনেক রাজ্যই এখন বিজেপির দখলে চলে এসেছে, কিন্তু তাও কোথাও যেন কিছু একটা না পাওয়ার আক্ষেপ রয়ে যাচ্ছে শিবিরে। আসলে নেতাজী, স্বামীজি, সর্বপরি দলের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি এর জন্মভূমি পশ্চিম বাংলা এখন বিজেপির অধরা রয়ে গিয়েছে। তাই কোথাও যেন সব পেয়েও কিছু যেন পাওয়া হয় নি এমনটাই মনে হচ্ছে বিজেপির কেন্দ্রীয় শিবিরের। তাই এবার বিজেপির কেন্দ্রীয় শিবির বিশেষ নজর দিয়েছেন আমাদের রাজ্য অর্থাৎ পশ্চিমবাংলার উপর। অসমের পর এবার বিজেপির মূল লক্ষ্য হল পশ্চিমবাংলা। তাই পশ্চিমবাংলাকে নিজেদের দখলে নেওয়ার জন্য কোনো রাস্তায় বাকি রাখছেন না গেরুয়া শিবির।

আর সেই লক্ষ্যেই দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছেন পদ্মবাহিনী। তাই এবারই পশ্চিমবাংলায় প্রথমবারের জন্য পালিত হল আজাদ হিন্দ ফৌজের বর্ষপূর্তি। এবার আজাদ হিন্দ ফৌজের ৭৫ তমবর্ষপূর্তি ছিল সেই জন্যই নেতাজী কে সামনে রাখে পুরো দেশের পাশাপাশি রাজ্যজুড়ে অনুষ্ঠান পালন করল বিজেপি শিবির। স্বাধীনতার পর থেকে কোনো দিন পশ্চিমবাংলায় এইদিনটি পালিত হয় নি। বিজেপির উদ্দ্যোগেই প্রথমবার পালন করা হল।

আরো পড়ুন – বেরিয়ে এলো আসল সত্য! ঠিক এইভাবেই বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছিল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সাথে।

সেই সাথে সুভাষচন্দ্র বসুকে উপযুক্ত মৰ্যাদা দেওয়ার জন্য এবং স্বাধীনতা সংগ্রামের আসল ইতিহাসকে সকলের সামনে তুলে ধরবার জন্য পুরুলিয়া জেলার জয়পুর, তুলিন, লালপুর, ঝালদা, জার্গো ওবাঘমুন্ডিতেও পালন করা হল আজাদ হিন্দ ফৌজের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান এমনটাই জনিয়েছেন বিজেপি নেতৃত্ব। তারা আরও জানিয়েছেন যে, যদি আমাদের দেশে এই দিন আরও আগে থেকে পালন করা শুরু হত তাহলে ভারতবর্ষ ৪ বছর আগেই নিজেদের স্বাধীনতা লাভ করত। এবং নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু হতেন দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী। তাই এবার থেকে এই দিনটি কে বিজেপি বিশেষ দিনের আক্ষা দিলেন।

আরো পড়ুন – বড় খবর- নরেন্দ্র মোদীর মাস্টারস্ট্রোক! চীনের মুখ থেকে ৩০০ মিলিয়ন ডলার ছিনিয়ে নিলো ভারত।

এদিনের এই বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপনের সাথে সাথে বিজেপির জন্য এল আরও একটি সুখবর। লালপুর কার্যালয়ে হুড়ার মাগুড়িয়া গ্রাম যেটি অন্তর্গত হুড়া মন্ডলের ZP ২২ – এর। সেই এলাকার তৃনমূল কংগ্রেসের অঞ্চল যুব পদাধিকারী টিঙ্কু মাহাতো নিজে এবং তার সহকর্মী আরও ২১ টি পরিবার একসাথে ের অত্যাচারের বিরুদ্ধে উপযুক্ত জবাব দিয়ে ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করলেন। টিঙ্কু মাহাতো বিজেপিতে যোগ দিয়ে জানান যে, ে আমাকে এবং আমার সহকর্মীকে স্বাধীন ভাবে কাজ করতে দেওয়া হত না। আমাদের সমস্ত কাজে বাঁধা দেওয়া হত। কোনো অসামাজিক কাজের বিরুদ্ধে মুখ খোলার অনুমতি আমাদের ছিল না উলটে আমাদের দিয়ে বিভিন্ন অসামাজিক কাজকর্ম করানো হত। তাই আমরা নরেন্দ্র মোদীর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সাধারণ মানুষের হয়ে কাজ করার জন্যই তৃনমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান করলাম।
#অগ্নিপুত্র