Press "Enter" to skip to content

ক্ষমতা চলে যাওয়ার পরেও দাদাগিরি তৃণমূল নেতার! জোর করে বাড়ির কাজ বন্ধ করে দিল বিদায়ী তৃণমূল কাউন্সিলার।

রাজ্যজুড়ে তৃণমূল পার্টির সদস্য ও কার্যকর্তারা কিভাবে সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছে তার প্রমান আরো একবার মিললো থেকে। ঘটনাটি ের আট নাম্বার ওয়ার্ডের মঙ্গলপুর মাস্টারপাড়া এলাকার। ওই এলাকার বাসিন্দা দেবব্রত সরকার বাড়ির বাউন্ডারি ওয়ালের কাজ শুরু করেছিলেন। এরপর সেখানে গিয়ে দাদাগিরি শুরু করেন শঙ্কর দত্ত নামে তৃণমূলের বিদায়ী কাউন্সিলার। শঙ্কর দত্ত কাজ বন্ধ করানোর জন্য হুমকি দেন। অবশ্য শঙ্কর দত্ত এ সমস্থ অভিযোগকে অস্বীকার করেছেন। বাড়ির মালিক দেবব্রত সরকার জানান পৌরসভার অনুমতি নিয়েই এই কাজ তিনি শুরু করেছিলেন। সেই সময় শঙ্কর দত্ত হুমকি দিয়ে কাজে বাধা দেন।

বিদায়ী কাউন্সিলারের এখন কোনো প্রশাসনিক ক্ষমতা নেই তা সত্ত্বেও শঙ্কর দত্ত হুমকি ও ধমকি দিয়ে গুন্ডাগিরি করেছেন বলে অভিযোগ এসেছে। বাড়ির মালিক মহকুমা শাসকের কাছে এই ব্যাপারে অভিযোগ জানিয়েছে। ঈশা মুখোপাধ্যায় যিনি এলাকার মহকুমা শাসক, উনি ঘটনার তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন। জানা গিয়েছে বাড়ি তৈরি করার প্রথম থেকে TMC এর তরফ থেকে এই রকম উপদ্রপ সন্ত্রাস চালানো হয়েছে।

বাড়ির মালিক

বাড়ির বাউন্ডারি ওয়ালের নির্মাণের জন্য পৌরসভার কাছে সুনিদৃষ্ট অনুমতি নিয়েছিলেন দেবব্রত সরকার। কিন্তু নির্মাণ কাজ শুরু হলে বিদায়ী কাউন্সিলার শঙ্কর দত্ত এসে আরো ২ ফুট জমি ছেড়ে দেওয়ার জন্য হুমকি দেন।এরপর দেবব্রত সরকার পৌরসভার অনুমতির কথা জানান কিন্তু তখন বিদায়ী কাউন্সিলার ধমক চমক দিয়ে ভয় দেখিয়ে কাজ বন্ধ করে দেন।

তৃনমূল কাউন্সিলার

দেবব্রত সরকার বলেন আমি রাস্তার জন্য জায়গা আগেই ছেড়ে দিয়েছি এবং আমার কাছে পৌরসভার পারমিশন লেটার রয়েছে কিন্তু শঙ্কর দত্ত তা মানেন না বলে হুমকি দিয়ে গেছে। কাউন্সিলারের ক্ষমতা নেই ঠিকই কিন্তু তৃণমূলের বিদায়ী কাউন্সিলার হওয়ার দাদাগিরি দেখিয়ে একটা সাধারণ মানুষকে সমস্যায় ফেলেছেন।