Press "Enter" to skip to content

বঙ্গবিজেপির মাস্টারস্ট্রোক! তৃণমূলের দুই সাংসদ পা বাড়ালেন বিজেপি শিবিরে।

সামনে লোকসভা নির্বাচন এবং ২০২১ এ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন, তাই নিয়ে জোর পস্তুতি শুরু করে দিয়েছে মুকুল ও দিলীপের জোট। জানিয়ে দি এখন বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সবথেকে বড় ঝড় দেখা যাচ্ছে এক সময়ের বামপন্থীদের গড় পশ্চিমবঙ্গে। সাধারণ কার্যকর্তা তো দূর, বড় বড় বাম নেতা দ্বারা প্রভাবিত স্থানীয় নেতারাও এখন কট্টরপন্থীদের ব্রদ্ধি পাওয়া প্রভাব দেখে রাম নাম নিয়ে বিজেপিতে যোগদান শুরু করেছে। যে পশ্চিমবঙ্গে একসময় সেকুলারপন্থীর নামে ভণ্ডামি চলতো সেই বঙ্গ এখন রাষ্ট্রবাদ, জাতীয়তাবাদ ও হিন্দুত্ববাদের মূল ধারার ফিরে এসেছে। রাষ্ট্রবাদ ও হিন্দুত্ববাদের প্রভাব বঙ্গে এতটাই প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করেছে যে সরকারে থাকা তৃণমূল এর পদ ছেড়েও বহু নেতা বেরিয়ে আসতে শুরু করে দিয়েছে।

যার সরাসরি লাভ তুলছে বঙ্গবিজেপি। সম্প্রতি দুজন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ তৃণমূল ছেড়ে বিজেপির দিকে পা বাড়িয়ে দিয়েছেন। বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুর থেকে সাংসদ সৌমিত্র খাঁ তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়ার পর বিজেপিতে যোগদান করেছেন। দিল্লীর বিজেপি সদর দপ্তরে গিয়ে সৌমিত্র খাঁ নাম লিখিয়ে আসেন। সৌমিত্র খাঁ বলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী পার্টির উপর পরিবারতন্ত্র এবং একনায়কতন্ত্র শুরু করেছে।

তবে শুধু সৌমিত্র খখাঁ নন, তৃণমূলের আরো বেশকিছু নেতা বিজেপিতে যোগদান করতে চলেছেন। বোলপুরের সাংসদ অনুপম হাজরাকে সম্প্রতি তৃণমূল পার্টি বহিষ্কার করেছে। অনেকের দাবি অনুপম এবার পদ্ম শিবিরে নাম লেখাতে পারেন।

জানিয়ে দি, অনুপম হাজরা একজন উচ্চ শিক্ষিত রাজনৈতিক ব্যক্তি। উনি নিজের মতামত রাখার জন্য পার্টির গাইডলাইনকেও তোয়াক্কা করতেন না কারণ উনি মনে করেন নিজের মতামত রাখা তার জন্মগত অধিকার। মুকুল রায় জানিয়েছেন তৃণমূলের নেতাদের লম্বা তালিকা উনার কাছে রয়েছে যারা আগত সময়ে বঙ্গবিজেপিতে যোগ দেবেন।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.