Press "Enter" to skip to content

দশ হাজারেরও বেশি মিথ্যা বলেছেন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প! কাশ্মীর নিয়ে অকাট্য মন্তব্য এই প্রথম না

আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) সোমবার কাশ্মীর নিয়ে দায়িত্বহীন বক্তব্য করেছেন। উনি পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি ইমরান খান (Imran Khan) এর সাথে সাক্ষাতের পর বলেন, নরেন্দ্র মোদী কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে মধ্যস্থতা করার জন্য ওনাকে বলেছেন।

ট্রাম্পের এই মন্তব্যের পর ভারত সরকার আমেরিকার রাষ্ট্রপতির এই বয়ানকে সম্পূর্ণ ভাবে খারিজ করেছে। ভারত সরকার জানায়, কাশ্মীর দ্বিপাক্ষিক ইস্যু আর এই নিয়ে তৃতীয় কোন রাষ্ট্রের ভূমিকা নেই। আরেকদিনে দুই দেশের রাজনেতাদের সাক্ষাৎ এর পর হোয়াইট হাউস থেকে করা প্রেস কনফারেন্সের পর জারি বিজ্ঞপ্তিতে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে কিছুই বলা হয়নি। হোয়াইট হাউস জানায়, আমরা শান্তি, স্থিরতা আর আর্থিক সমৃদ্ধির জন্য পাকিস্তানের সাথে কাজ করতে চাই।

এটা প্রথমবার না যে, ট্রাম্প মিথ্যা কথা বলল। তিনি প্রায় দিনই আলাদা আলাদা মামলায় নানারকম মিথ্যা কথা বলেন। ওয়াশিংটন পোস্টের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, ট্রাম্প রোজ ২৩ টা করে মিথ্যা কথা বলে। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, ২১ এপ্রিল পর্যন্ত ৮২৮ দিনে ট্রাম্প ১০,১১১ টি মিথ্যা কথা বলেছে। এই দাবিতে ট্রাম্পের ট্যুইটার পোস্টও আছে। অবাক করা কথা হল, শুধু তিনদিন (২৫-২৭ এপ্রিল) ট্রাম্প ১৭১ বার মিথ্যা কথা বলেছে আর মানুষকে ধোঁয়াশায় রেখছে।

এর আগে ওয়াশিংটন পোস্ট ট্রাম্পের কার্যভার সামলানোর দুই বছর পর একটি রিপোর্ট জারি করেছিল। যেখানে বলা হয়েছিল যে, ট্রাম্প ওই দুই বছরে ৮,১৫৮ বার মিথ্যা কথা বলেছে। ট্রাম্প Immigration নিয়ে ১৪৩৩, বিদেশ নীতি নিয়ে ৯০০, ব্যাবসা নিয়ে ৮৫৪, অর্থব্যাবস্থা নিয়ে ৭৯০, চাকরি নিয়ে ৭৫৫ এবং অনান্য ব্যাপারে ৮৯৯ বার মিথ্যা কথা বলেছেন।

সংবাদ মাধ্যমের এই রিপোর্টে ‘ফ্যাক্ট চেকার’ এর তথ্যাদি উদ্ধৃত করা হয়েছে। এই ফ্যাক্ট চেকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প দ্বারা প্রদত্ত প্রতিটি সন্দেহজনক বিবৃতি বিশ্লেষণ, শ্রেণীকরণ এবং সনাক্তকরণ কাজ করে।