Press "Enter" to skip to content

কাঠুয়া মামলায় বেরিয়ে এলো আরো এক চাঞ্চল্যকর তথ্য।

কয়েকমাস আগেই কাঠুয়া ঘটনা নিয়ে উথালপাথাল হয়েছিল পুরো দেশ। যেখানে অন্যান ধর্ষন ঘটনাকে মিডিয়া নিউস পেপারের এক কোনে রেখে ছেপে দেয়, সেখানে কাঠুয়ার তিন মাস পুরানো ঘটনাকে নিয়ে রাজনীতি ও প্রচার শুরু করেছিল মিডিয়া। যদিও জী নিউজ এই ঘটনার আসল সত্যতা দেশবাসীর সামনে তুলে ধরেছিল।

আজ কাঠুয়া কান্ড নিয়ে আরো এক সত্যতা সামনে এসেছে। কাঠুয়া কান্ডে যে ব্যাক্তি নিজেকে আসিফার বাবা বলে দাবি করছিল সে আজ আদালতে করেছে যে সে আসিফার আসল বাবা নন। ওই ব্যাক্তি এটাও মেনে নিয়েছে যে জম্মুর এক নেতার কথা শুনে সে এই অভিনয় করেছিল।যার মধ্যে ধর্ষণ এর তিন মাস পর হটাৎ করে রাস্তা জ্যাম করা, ধর্ণা করা এবং রেহেবারি ফাউন্ডেশন ও ইন্টারনেটের মাধমে চাঁদা তোলা ইত্যাদি কার্যকলাপ যুক্ত ছিল। এই তথ্যে উকিল এ.কে সাহানি জানিয়েছেন। উনি বলেন যে ট্রাস্টে আশিফার নকল বাবার ব্যাঙ্ক একাউন্ট যুক্ত ছিল।

ফেসবুক ও অন্যান সোশ্যাল মিডিয়ার মাধমে নকল বাবা আসিফার ছবি বুকের মধ্যে রেখে টাকা সাহায্যের জন্য আবেদন করেছিল। এই টাকা সংগ্রহের মামলায় JNU এর কিছু ছাত্রও যুক্ত ছিল তা আপনাদের আগেই জানিয়েছিলাম। জানলে অবাক হবেন, যে নেতার কথা শুনে আসিফার নকল বাবা এই কাজ করেছিল তার উপরেও ৪ টি বিভিন্ন মামলা রয়েছে। কাঠুয়া কান্ডকে নিয়ে যেভাবে একের পর এক সত্য সামনে আসছে তাতে এটা পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে যে এই ঘটনাকে দুমড়ে চুমড়ে মানুষের সামনে আনার চেষ্টা করা হয়েছিল।

নিচে ভিডিও-

দ্বিতীয় ভিডিও-